Logo
আজঃ সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২
শিরোনাম

আমিরাতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশনের মতবিনিময়

প্রকাশিত:রবিবার ২২ মে 20২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ২২১জন দেখেছেন
Image

মো নূরুল্লাহ  খান, আরব আমিরাতঃ সংযুক্ত আরব আমিরাতের আবুধাবিতে  বাংলাদেশ দূতাবাসে রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ আবু জাফরের সঙ্গে গতকাল সাক্ষাত করেছেন সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশনের মহাসচিব ও ইলেকশন মনিটরিং ফোরামের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবেদ আলী।

এসময় রাষ্ট্রদূত বলেন, প্রবাসী বাংলাদেশিদের সর্বাত্মক সহযোগিতাসহ দু দেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরো দৃঢ়করণে কাজ করে যাচ্ছে বাংলাদেশ দূতাবাস।  দূতাবাসের সকল কর্মকর্তাগণ প্রবাসীদের পাশে আছে এবং থাকবে।

সাক্ষাতকালে সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন মহাসচিব ও ইলেকশন মনিটরিং ফোরামের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবেদ আলী বলেন, বিদেশে অবস্থানরত সকল দূতাবাসসমুহ প্রবাসীদের কল্যাণে কাজ করলে তারা আরো উৎসাহিত হবে এবং দেশের প্রতি প্রবাসীদের ভালোবাসা আরো বেশি বৃদ্ধি পাবে।

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রীয় পরিচালক  ড. মুহম্মদ মাসুম চৌধুরী, সার্ক ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন ইউএইর যুগ্ন আহবায়ক ওসমান চৌধুরী,  চট্টগ্রাম জেলার আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ও ইউএইর সদস্য সচিব এস এম মোদাচ্ছের শাহ ও দূতাবাসের কর্মকর্তাবৃন্দ।


আরও খবর



ধারাবাশাইল উচ্চ বিদ্যালয়ে পুনরায় সভাপতি হলেন কাজী অমিত মাহমুদ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৫৩জন দেখেছেন
Image

কোটালিপাড়া (গোপালগঞ্জ) প্রতিনিধি: গোপালগঞ্জের কোটালিপাড়ার কান্দিইউনিয়নের ধারাবাশাইল উচ্চ বিদ্যালয় শোমবার ম্যানেজিং কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।পুনরায়  নির্বাচিত হয়েছেন কাজী অমিত মাহমুদ। 

অভিভাবক, শিক্ষক,,দাতা সদস্য মোট ৯ সদস্য বিশিষ্ট ম্যানেজিং কমিটি গঠন করা হয়েছে। কান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তুষার মুধু বলেন পরপর চার  বার  নির্বাচিত হওয়ার একটা  বড় কারণ তিনি সভাপতি হওয়ার পর  থেকে উচ্চ বিদ্যালয়ের অবকাঠামো পরিবর্তন হয়েছে।

লেখা পড়ার মান ভালো হয়েছে। ম্যানেজিং কমিটির শিক্ষক সদস্য সহকারী প্রধান শিক্ষক মনিন্দ্র নাথ রায় বলেন কাজী অমিত মাহমুদ আমাদের শিক্ষক, এবং ছাত্র ছাত্রী ও বিদ্যালয়ের দিক সার্ব খানিক খেয়াল রাখেন। কাজী অমিত মাহমুদ পুনরায় নির্বাচিত  হয়ে সকলের উদ্দেশ্যে বলেব আমার  চাওয়া লেখা পড়ার মান উন্নত করা বিদ্যালয় কে সরকারি করা,  শিক্ষার্থীদের সুশিক্ষায় শিক্ষিত করা।

আমার পুর্বপুরুষ থেকে শুরু করে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাথে জরিত। আমার বাবা কাজী মন্টু কলেজের প্রতিষ্ঠাতা,  চাচা শাহানা রশিদ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা।আমার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে আসি ও থাকব এই কথা বলে শুভেচ্ছা জানিয়ে বক্তব্য শেখ করেন।


আরও খবর



ঝালকাঠিতে

এমপি আমু’র পিতার ৫৫তম মৃত্যু বার্ষিকী পালন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৯২জন দেখেছেন
Image

কঞ্জন কান্তি চক্রবর্তী: ঝালকাঠি: কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র ও সমন্বয়ক সাবেক মন্ত্রী ঝালকাঠির রাজনৈতিক অভিভাবক আমির হোসেন আমু এমপির মরহুম পিতা মোয়াজ্জেম হোসেনের ৫৫ তম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

অন্যদিকে মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে এমপি আমির হোসেন আমু'র পরিবারবর্গের পক্ষ থেকে মঙ্গলবার বাদ যোহর মিলাদ ও দোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিলো। ঝালকাঠি আমতলা রোডস্থ আমির হোসেন আমু'র বাসভবনে আয়োজিত দোয়া অনুষ্ঠানে প্রয়াত মোয়াজ্জেম হোসেন ও তার সহধর্মিণী আকলিমা বেগম এর রুহের মাগফেরাত কামনায় মিলাদ, দুরুদ পাঠ এবং দোয়া মুনাজাত করা হয়। দোয়া শেষে উপস্থিত সকলের মাঝে তাবারক বিতরন করা হয়।

মিলাদ ও দোয়ার পূর্বে প্রয়াত মোয়াজ্জেম হোসেন ও আকলিমা বেগমের জীবনী নিয়ে আলোচনা করেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জেলা পরিষদ প্রশাসক সরদার মোঃ শাহআলম, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খান সাইফুল্লাহ পনির। অনুষ্ঠানে জেলা আ’লীগের সহসভাপতি নলছিটি উপজেলা চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান, যুগ্মসম্পাদক নুরল আমিন সুরুজ, পৌর আ’লীগ সভাপতি মেয়র আলহাজ্ব লিয়াকত আলী তালুকদার, সাধারন সম্পাদক মাহাবুব হোসেন, আইনজীবী সমিতির সভাপতি কৃষকলীগ নেতা এড. আব্দুল মন্নান রসুল, জেলা আ’লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিল, উপজেলা আ’লীগ সভাপতি আঃ রশিদ হাওলাদার, সাধারন সস্পাদক হাফিজ আল মাহমুদসহ জেলা, পৌর ও উপজেলা আ’লীগ, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীসহ গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর

বিষখালীর হঠাৎ ভাঙনে ছয় দোকান বিলীন

মঙ্গলবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২




কুষ্টিয়ায় নৌকা ডুবিতে নিখোঁজ ফাতেমার মৃত দেহ পাংশায় উদ্ধার

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৬৯জন দেখেছেন
Image

রাজবাড়ী প্রতিনিধি: গত শুক্রবার ২ সেপ্টেম্বর কুষ্টিয়া জেলার ঘোড়াঘাট এলাকায় খেয়া পারাপারের সময় গড়াই নদীতে নৌকা ডুবিতে কুষ্টিয়া সদর ত্রিমহনী যুগিয়া এলাকার রমজান শেখের মেয়ে ফাতেমা ( ১০) নিখোঁজ হয়। উল্লেখ্য ঐদিন ঘোড়াঘাট এলাকায় নৌকা বাইচ প্রতিযোগীতা চলছিল।

৫ সেপ্টেম্বর সকালে সকালে রাজবাড়ী জেলার পাংশা উপজেলার কসবামাজাইল ইউনিয়নের নাদুরিয়া গড়াই নদীর ঘাট এলাকা থেকে শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

পাংশা মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ মাসুদুর রহমান বলেন, ৯৯৯ থেকে ফেনে জানতে পারি নাদুরিয়া ঘাট এলাকায় একটি মরদেহ পাওয়া গেছে । বিষয়টি কুমারখালী থানা পুলিশকে জানালে পুলিশ মরদেহটি নিয়ে যায়। 


আরও খবর



বন্যায় ধুঁকছে পাকিস্তান, লাখ লাখ মানুষের আজাহারি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৭৯জন দেখেছেন
Image

পাকিস্তানে ভয়াবহ বন্যার তাণ্ডব অব্যাহত রয়েছে। দেশটির বিভিন্ন প্রদেশে বন্যার পরিস্থিতির তেমন উন্নতির কোনো খবর পাওয়া যায়নি। উল্টো এই পরিস্থিতি আরও খারাপের দিকে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করা হয়েছে। 

পাকিস্তানের একাধিক সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, বন্যায় এখন পর্যন্ত মৃত্যুর সংখ্যা এক হাজার ১৩৬ জনে দাঁড়িয়েছে। আহত হয়েছে শতাধিক। এতে তিন কোটিরও বেশি মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।  

জুন থেকে শুরু হওয়া বন্যা লাখো মানুষকে ঘরছাড়া করেছে। এই পরিস্থিতিতে জনগণকে সহায়তায় পাকিস্তান সরকার তার ক্ষমতার সর্বোচ্চটাই করছে। বন্যায় বিপর্যস্ত দেশটি আন্তর্জাতিক সহায়তা পেতে বিভিন্ন সংস্থা ও রাষ্ট্রের কাছে আবেদন জানিয়েছে। ইতোমধ্যে পাকিস্তানের সাহায্যের আবেদনের প্রেক্ষিতে সাড়া দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও অন্য কয়েকটি দেশ। 

পাকিস্তানের ন্যাশনাল ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট অথরিটির (এনডিএমএ) প্রকাশিত তথ্য অনুসারে, গত ২৪ ঘণ্টায় ২৭ শিশু ও ১৭ জন নারীসহ সর্বমোট ৭৫ জনের প্রাণহানি হয়েছে। এছাড়াও আহত হয়েছে ৫৯ জন। এনডিএমএ জানিয়েছে, বন্যায় ১০ লাখেরও বেশি বাড়ি ধ্বংস হয়েছে।

এনডিএমএর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের সংখ্যা বেড়ে তিন কোটিতে দাঁড়িয়েছে। সিন্ধু প্রদেশের ২৩টি জেলায় এক কোটি ৪০ লাখ মানুষ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। 

এছাড়াও বেলুচিস্তানের ৩১টি জেলায় ৯০ লাখ, পাঞ্জাবের ৩টি জেলায় ৪৮ লাখ ও খাইবার পাখতুনখোয়ার ৯টি জেলায় ৪৪ লাখের মতো মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।



আরও খবর



বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারণ করে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে একধাপ এগিয়ে যেতে চান সাইদুর রহমান চৌধুরী

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৯৫জন দেখেছেন
Image

নেত্রকোনা প্রতিনিধিঃ প্রকৃতি ও অপরূপ সৌন্দর্যের নীলাভূমি বারহাট্টা উপজেলার চিরাম ইউনিয়ন, একটি মনোমুগ্ধকর ইউনিয়ন, এই ইউনিয়নের হয়েছে ছোট বড় কয়েকটি দৃশ্যমান বিল যা দেখলে যে কেউ প্রকৃতির প্রেমে পাগল হয়ে যায়, সেজন্যই প্রতি নিহতই এই এলাকায় ঘুরতে আসে অনেক পর্যটক। এই ইউনিয়নের একজন আদর্শবান চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান চৌধুরী চিরাম ইউনিয়ন বাসীর সেবা করার উদ্দেশ্যেই যিনি জনগণের দ্বারে দ্বারে কাজ করে যাচ্ছেন। সেই ধারাবাহিকতায় তিনি গত ইউপি নির্বাচনে নৌকা মার্কা নিয়ে অংশগ্রহণ করে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর থেকে বিপুল ভোট পেয়ে চিরাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এছাড়া আজ অবধি তিনি কোনো অন্যায় অবিচারের সঙ্গে আপোষ করেননি। দৃঢ় অবস্থানের কারণে নিজ নির্বাচিত এলাকায় দিনের পর দিন তার জনপ্রিয়তা বেড়েই চলেছে। বর্তমানে যার বিকল্প হিসেবে অন্য কাউকে দেখছে না ইউনিয়নবাসী। সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়া সেই মেধাবী ও পরিশ্রমী মানুষটি নেত্রকোনা জেলার বারহাট্টা উপজেলার চিরাম ইউনিয়ন পরিষদের সুযোগ্য চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান চৌধুরী।

বারহাট্টা উপজেলার চিরাম ইউনিয়ন এক সময়ের অবহেলিত এই অঞ্চলটির সাধারণ মানুষের চলাচলের জন্য তেমন কোনো পাকা কিংবা আরসিসি ঢালাইয়ের রাস্তা ছিল না। ফলে চলাচলের সময় নানা ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হতেন তারা। জনসাধারণের এই দুর্দশা আর দুর্বস্থা দেখে জনগণের সেবা করার উদ্যেশে ইউপি নির্বাচনে অংশগ্রহন করেন। ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে ইতোমধ্যে এই ইউনিয়নের রাস্তাঘাটসহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ দৃশ্যমান হচ্ছে।পাল্টে দিচ্ছেন সম্পূর্ণ ইউনিয়নের সামগ্রিক চিত্র।

চিরাম ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় আরসিসি ঢালাইয়ের রাস্তা এবং সঙ্গে ড্রেনেজ ব্যবস্থার কাজ চলমান রয়েছে, দেখে আপনার মনে হতে পারে আপনি কোনো মডেল টাউনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন। তাই এই ইউনিয়নকে একটা মডেল ইউনিয়ন বলা যেতেই পারে। উন্নয়ন কাজের পাশাপাশি মহামারি করোনাকালীন পরিস্থিতির শুরু থেকে এখনও পর্যন্ত এই ইউনিয়নের কর্মহীন ও হতদরিদ্র মানুষের পাশে ব্যক্তিগত উদ্যোগে খাদ্য এবং স্বাস্থ্যসুরক্ষা সামগ্রী দেওয়াসহ বিভিন্ন মানবিক কর্মকাণ্ডের কারণেই তিনি আজ জননন্দিত। অন্যদিকে তিনি চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালনের পর থেকে এলাকায় মাদক এবং সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে জিরো-টলারেন্স নীতি অবলম্বনে কাজ করে চলেছেন।

এলাকার কয়েকজন সাধারণ মানুষের সাথে কথা হলে তারা বলেন , চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান চৌধুরী চিরাম ইউনিয়নের উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন। ইউনিয়নবাসী বলেন সাইদুর রহমান চৌধুরী চেয়ারম্যানের বিকল্প হিসেবে অন্য কাউকে ভাবতে চাই না।

চিরাম ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় সাইদুর রহমান চৌধুরী চেয়ারম্যান এর বিকল্প কোন চেয়ারম্যান তারা চায়না। তারা শুধুই বলে বিগত ৫০ বছরেও সেই রকম কোনো উন্নয়ন হয় নাই। যা সাইদুর রহমান চৌধুরী চেয়ারম্যান করে দেখাচ্ছেন, আমরা উনার মত চেয়ারম্যানকে বারবার চেয়ারম্যান হিসেবে চিরাম ইউনিয়নে দেখতে চাই।

চিরাম ইউনিয়ন পরিষদের সুযোগ্য চেয়ারম্যান নৌকার মাঝি সাইদুর রহমান চৌধুরী জানান, আমি ইউনিয়ন বাসীর ভালোবাসা নিয়েই কাজ করতে চাই তাদের সাথে নিয়েই অনেক দূর এগিয়ে যেতে চাই। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলার স্বপ্ন পূরণ করতে চাই। জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে উন্নয়নের কোনো বিকল্প নেই। আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী, আমি আওয়ামী লীগের নৌকা মার্কার একজন চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করে আমি আমার লক্ষ্যে পৌঁছাতে চাই আমার ইউনিয়ন বাসীর সহযোগিতায়।


আরও খবর