Logo
আজঃ সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২
শিরোনাম

ডানা মেলবে বিদ্যুৎ চালিত যাত্রীবাহী বিমান

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৫৪৪জন দেখেছেন
Image

আকাশপথে যাত্রী পরিবহনে বিপ্লব ঘটাতে প্রস্তুত অ্যালিস। এটি একটি বিদ্যুৎ চালিত বিমান। আকৃতি ও কার্যক্রম সাধারণ উড়োজাহাজের মতো হলেও চলবে ব্যাটারিতে। বৈদ্যুতিক গাড়ি কিংবা সেলফোনের মতো একই ব্যাটারি প্রযুক্তিতে তৈরি এই উড়োজাহাজ ৩০ মিনিটের চার্জে ৯ জন যাত্রী নিয়ে এক ঘণ্টা উড়তে পারে। পাড়ি দেয় প্রায় ৪৪০ নটিক্যাল মাইল। ছুটতে পারে প্রতি ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ২৮৭ মাইল বেগে। নতুন প্রযুক্তির এই যাত্রীবাহী বিমান প্রস্তুত করেছে ওয়াশিংটনভিত্তিক কোম্পানি এভিয়েশন। কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই এটি আকাশে উড়বে। এ জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। সম্পন্ন হয়েছে সফল পরীক্ষাও। গত সপ্তাহে ওয়াশিংটনের সিয়াটল শহরের উত্তরে আরলিংটন মিউনিসিপাল বিমানবন্দরে এই পরীক্ষা শেষ হয়।

এভিয়েশনের প্রধান নির্বাহী ওমের বার-ইয়োহে জানিয়েছেন, বৈদ্যুতিক উড়োজাহাজের তিনটি ধরন নিয়ে কাজ করছেন তারা। একটি হলো কমিউটার, একটি এক্সিকিউটিভ এবং অন্যটি বিশেষায়িত পরিবহন বিমান। এর মধ্যে কমিউটার উড়োজাহাজের পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। এতে ৯ যাত্রী ছাড়াও দুই পাইলট ও ৮৫০ পাউন্ড ওজন বহন করা যাবে। তারা আশা করছেন, সাত থেকে ১০ বছরের মধ্যে একটি বৈদ্যুতিক বিমান ২০ থেকে ৪০ জন যাত্রী বহন করতে পারবে। সূত্র :সিএনএন।


টুয়েন্টি থ্রি /নিউজ


আরও খবর



ফুলবাড়ীতে মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণ, শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৮৩জন দেখেছেন
Image

ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে প্রেমের ফাঁদে ফেলে নবম শ্রেণীর এক মাদ্রাসার শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগে এক লম্পট শিক্ষকের বিরুদ্ধে থানায় নারী-শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন মেয়ের বাবা।

আজ শুক্রবার সকালে ওই শিক্ষার্থীকে মেডিকেল পরীক্ষা করার জন্য কুড়িগ্রাম আদালতে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার নাওডাঙ্গা ইউনিয়নের গোরকমন্ডপ (বিডিআর বাজার) এলাকায়।

ফুলবাড়ীতে মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণ, শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে প্রেমের ফাঁদে ফেলে নবম শ্রেণীর এক মাদ্রাসার শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগে এক লম্পট শিক্ষকের বিরুদ্ধে থানায় নারী-শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন মেয়ের বাবা।

আজ শুক্রবার সকালে ওই শিক্ষার্থীকে মেডিকেল পরীক্ষা করার জন্য কুড়িগ্রাম আদালতে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার নাওডাঙ্গা ইউনিয়নের গোরকমন্ডপ (বিডিআর বাজার) এলাকায়।

ঐ শিক্ষার্থীর বাড়ী উপজেলার গোরুকমন্ডপ খলিশাটারী গ্রামে। তিনি ওই এলাকার আনোয়ারুল হকের মেয়ে। অন্যদিকে ঐ সহকারি শিক্ষকের বাড়ী একই ইউনিয়নের নাওডাঙ্গা এলাকায়। তিনি ঐ এলাকার মৃত চাঁদ মিয়ার ছেলে ও গোরকমন্ডল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক।

গোরকমন্ডল এলাকার বাসিন্দা নুর হোসেন, জান্টু মিয়া জানান, গোরকমন্ডল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মোতালেব মিয়ার সঙ্গে বালারহাট ডিএস দাখিল মাদ্রাসার নবম শ্রেনীর এক শিক্ষার্থীর প্রেমের সর্ম্পক গড়ে উঠে। এক পর্যায়ে ঐ মাদ্রাসা শিক্ষর্থীকে বিয়ের প্রলোভনে একাধিকবার উভয়ের মধ্যে শারীরিক মিলনে জড়িয়ে যান। তাদের প্রেমের সর্ম্পক গোপন থাকলেও ক্রমান্বয় ছড়িয়ে পড়ায় বিয়ের চাপ দেন ওই শিক্ষার্থী। উপায়ন্তর না পেয়ে ওই শিক্ষকের লোকজন বুধবার রাতে মেয়ের বাড়ীতে শালিশী বৈঠকে সমাধানের চেষ্টা চালান। পরে বৈঠকে সমাধানের চেষ্টা ব্যর্থ হলে শিক্ষার্থীর বাবা বৃহস্পতিবার রাতে বাদী হয়ে ফুলবাড়ী থানায় নারী-শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। আমরা ওই সহকারি শিক্ষকের শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

উপজেলার ভারপ্রাপ্ত প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আশরাফুজ্জামান জানান, বিষয়টি শুনেছি। তার বিরুদ্ধে নারী কেলেঙ্কারীর ঘটনা হলে আইনাগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) ফজলুর রহমান জানান, শিক্ষার্থীর বাবা বাদী হয়ে নারী শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন। মেয়েটিকে মেডিকেল পরীক্ষা করার জন্য শুক্রবার সকালে কুড়িগ্রাম আদালতে পাঠানো হয়েছে। সেই সঙ্গে আসামীকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।


আরও খবর



সাংবাদিকদের উপর হামলার প্রতিবাদে ডেমরায় সমাবেশ ও চার থানা কমিটি ঘোষণা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৫৯জন দেখেছেন
Image

মাহমুদ হাসান প্রান্তঃ সোমবার বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের রাজধানীর ওয়ারী জোনের আওতাধীন ডেমরা স্টাফ কোয়ার্টার মাঠে আয়োজিত সাংবাদিক নির্যাতন ও সুরক্ষা আইন প্রণয়নের দাবিতে আয়োজিত আলোচনা সভায় আয়োজন করা হয়। বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান আহমেদ আবু জাফর। তিনি সরকারকে সাংবাদিক সুরক্ষা আইন প্রণয়ণসহ ১৪ দফা দাবি বাস্তবায়ন করতে জোড়ালো আহবান জানান। দেশে অহরহ সাংবাদিক নির্যাতন ঘটনা যেন থামছেইনা। সাংবাদিক সুরক্ষা আইন না থাকায় এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন। 

উদ্বোধনী বক্তব্যে রাখেন অনুষ্ঠান উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক মো. শফিকুল ইসলাম সাদ্দাম যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম, কেন্দ্রীয় কমিটি। সদস্য সচিব সেলিম নিজামির সভাপতিত্বে, প্রধান অতিথি ছিলেন এশিয়ান টিভির চেয়ারম্যান আলহাজ্ব হারুন অর রশিদ (সিআইপি)। বিশেষ অতিথি ছিলেন ডেমরা থানার অফিসার ইনচার্জ মো: শফিকুর রহমান, ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের ৬৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাহমুদুল হাসান পলিন, চিত্রনায়ক যুবরাজ খান, বিএমএসএফের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আবুল খায়ের খান, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ খায়রুল আলম,সদস্য আমির হোসেন, পূর্বাঞ্চল সাংবাদিক ইউনিটির সভাপতি ওমর ফারুক জালাল, স্বাস্থ্য এন্ড পরিবেশ মানবাধিকার সাংবাদিক সোসাইটির চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম খান, শরিফুল ইসলাম বিপ্লব।


অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক মুন্সি মোঃ আল ইমরান, রফিকুল ইসলাম, রেজাউল করিম,  মোঃ সাইফুল ইসলাম পারভেজ, রেভা খান, সুমন খান,  মনির হোসেন, সভায় নেতৃবৃন্দ সারাদেশে সাংবাদিকদের ওপর অব্যাহত হামলা, নির্যাতন, জেল জরিমানার নীল নকশার কালো আইন বাতিল, সাংবাদিক সুরক্ষা আইন প্রণয়নসহ ১৪ দফা দাবি বাস্তবায়নে সরকার এবং গণমাধ্যম মালিকদেরকে আন্তরিক হওয়ার আহবান জানানো হয়।

সমাবেশে ওয়ারী জোনের ৪টি থানার কমিটি ঘোষণার মধ্য দিয়ে সাংবাদিকদের মাঝে একটি বৃহৎ ঐক্যের সুচনা করা হয়। যাত্রাবাড়ী থানা কমিটির সর্বসম্মতিক্রমে সভাপতি  মোঃ সাইফুল ইসলাম পারভেজ ও সাধারণ সম্পাদক মুন্সি আল ইমরান নির্বাচিত হন, শ্যামপুর থানার সভাপতি মোঃ সহিদুল ইসলাম জনি সাধারণ মোঃ মনির নির্বাচিত হন। ডেমরা থানার সভাপতি সেলিম নিজামী ও সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, কদমতলী থানার সভাপতি অ্যাডভোকেট মহিউদ্দিন  ও ইঞ্জিনিয়ার হাসান সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন।

সমাবেশ শেষে বিভিন্ন শিল্পীর অংশগ্রহনে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।



আরও খবর



রুপকথার গল্প হতে চলছে পটুয়াখালীতে বাঁশের চাঁই দিয়ে মাছ শিকারের ফলে

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৭৬জন দেখেছেন
Image

পটুয়াখালী প্রতিনিধিঃ  পটুযাখালীতে বাঁশের চাঁই দিয়ে মাছ শিকারের ফলে দেশী প্রজাতির মাছ রুপকথার গল্পেরমত হতে চলছে। এতে বিভিন্ন প্রজাতির দেশী মাছের পোনা ও মাছ উৎপাদন কমে যাচ্ছে। গ্রাম-গঞ্চে বাঁশের তৈরী চাঁই জলাশয়ে পেতে মাছের বংশ নষ্ট করছে অসাধু জেলেরা। 

অন্যদিকে বিভিন্ন খালে ও ডোবায় অধিক হারে কীটনাষক ব্যবহারের কারনে মাছের বংশ বিস্তার করতে পারছেনা। এসব অবৈধ চাঁই প্রতিরোধ করতে না পারলে দেশীয় প্রজাতির মাছ উৎপাদন কমে যাবে। তবুও থেমে নেই  মাছ শিকারে অসাধু জেলেরা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, দশমিনা উপজেলায় বিভিন্ন হাট-বাজারে অবৈধ ভাবে বাঁশের তৈরী চাঁই বিক্রি করে থাকে স্থানীয় ও সুবিধাভোগী ব্যবসায়ীরা। বৈশাখ থেকে ভাদ্র মাসের শেষ পর্যন্ত উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের ধানীজমি ও খাল-বিল, ডোবা-নালাতে বাশেঁর চাঁই পেতে বিভিন্ন প্রজাতির পোনা মাছ ও মাছ শিকার করা হচ্ছে। সরকারি নিয়ম অনুযায়ী মাছ শিকারের জন্য ব্যবহারিত  নিয়ম কানুন না মেনে অবৈধ ভাবে চাই পেতে মাছ শিকাওে মেতে উঠেছে অসাধু জেলেরা। 

এসকল অসাধু জেলেরা দুইসুতাঁ পরিমান ফাঁকা রেখে বাশেঁর চাঁই তৈরী করে ব্যবহার  করছে। ফলে দেশীয় প্রজাতির মাছের বংশ নষ্ট করছে। আর দেশীয় মৎস্য প্রজনন কমে যাচ্ছে। অন্য দিকে এ অঞ্চলের মানুষের মাছের আকাল দিন দিন বেড়েই চলছে। এমতাবস্থায় বাঁশের চাঁই ব্যবহার দ্রুত বন্ধ না করলে ভবিষ্যত প্রজন্মের কাছে দেশীয় মাছের রুপকথার গল্পেরমত থেকে যাবে।

চাঁই দিয়ে মাছ শিকারকারী মো. ইউনিুছ খা বলেন, কিস্তি এনে আগে রাস্তায় গাড়ি চালাইতাম যাত্রী কম থাকায় বাধ্য হয়ে বাজার থেকে বাঁশের চাঁই কিনে এনেছি। ৬জনের সংসারের খরচ চালাতে এ পথে নামছি। না খেয়ে কয়দিন থাকতে পারি। খালে-বিলে ও ডোবায় পেতে মাছ শিকার করে বাজারে কিংবা মাছের আড়ৎতে বিক্রি করে কোন রকম সংসার চালাই। এ উপজেলায় এরকম কয়েক শ’ চাঁই দিয়ে মাছ শিকার করে সংসার চালায় ।

এ ব্যাপারে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ মাহাবুব আলম তালুকদার বলেন, বাশেঁর চাঁই দিয়ে মাছ শিকারের কারনে এ অঞ্চলের দেশী বিভিন্ন প্রজাতির মাছ উৎপাদন কমে যাচ্ছে। তবে এ বাঁশের চাই গুলো অপসারনের লক্ষে উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারে এবং খালগুলোতে অভিযান পরিচালনা করা হবে।


আরও খবর

বিষখালীর হঠাৎ ভাঙনে ছয় দোকান বিলীন

মঙ্গলবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২




গাইবান্ধা-৫ আসনে ভোটকেন্দ্রের তালিকা প্রস্তুতের নির্দেশ

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৯৮জন দেখেছেন
Image

গাইবান্ধা-৫ আসনের উপ-নির্বাচনে ভোটকেন্দ্রের তালিকা আগামী ৬ সেপ্টেম্বরের মধ্যে প্রস্তুত করার নির্দেশনা দিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। 

বিষয়টি নিশ্চিত করে ইসির নির্বাচন ব্যবস্থাপনা শাখার উপ-সচিব খোরশেদ আলম বলেন, নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনাটি ইতোমধ্যে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে পাঠানো হয়েছে।

ইসির নির্দেশনায় বলা হয়েছে, গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ, ১৯৭২ এর ৮ অনুচ্ছেদের (১) দফা অনুসারে রিটার্নিং অফিসারকে সংসদ নির্বাচনে প্রত্যেক নির্বাচনী এলাকার জন্য ভোটকেন্দ্রের স্থান এবং ভোটাররা যে যে ভোটকেন্দ্রে ভোট দেবেন, সে সব স্থানের নাম উল্লেখপূর্বক ভোটকেন্দ্রের ৩ (তিন) প্রস্থ তালিকা (সফট কপিসহ) ৬ সেপ্টেম্বর মধ্যে বিশেষ দূত মারফত নির্বাচন কমিশনে দাখিল করতে হবে।

২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যেসব ভোটকেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছিল শূন্য আসনটির নির্বাচনেও ওই সব ভোটকেন্দ্র বহাল রাখতে হবে। তবে কোনো ভোটকেন্দ্র কোনো প্রার্থীর প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে প্রভাবাধীন হলে তা কমিশনকে অবহিত করতে হবে। এছাড়াও উল্লিখিত নির্বাচনী এলাকার বেশি গুরুত্বপূর্ণ ভোটকেন্দ্রের নাম নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ে পাঠাতে হবে।

তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় ১৩ সেপ্টেম্বর, বাছাই ১৫ সেপ্টেম্বর, আপিল ১৬ থেকে ১৮ সেপ্টেম্বর, আপিল নিষ্পত্তি ১৯-২১ সেপ্টেম্বর, প্রার্থিতা প্রত্যাহার ২২ সেপ্টেম্বর। আর ভোটগ্রহণ হবে ১২ অক্টোবর।


আরও খবর

২২ দিন ইলিশ ধরা-বিক্রি নিষিদ্ধ

বৃহস্পতিবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২




কুষ্টিয়ায় নৌকা ডুবিতে নিখোঁজ ফাতেমার মৃত দেহ পাংশায় উদ্ধার

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৬৯জন দেখেছেন
Image

রাজবাড়ী প্রতিনিধি: গত শুক্রবার ২ সেপ্টেম্বর কুষ্টিয়া জেলার ঘোড়াঘাট এলাকায় খেয়া পারাপারের সময় গড়াই নদীতে নৌকা ডুবিতে কুষ্টিয়া সদর ত্রিমহনী যুগিয়া এলাকার রমজান শেখের মেয়ে ফাতেমা ( ১০) নিখোঁজ হয়। উল্লেখ্য ঐদিন ঘোড়াঘাট এলাকায় নৌকা বাইচ প্রতিযোগীতা চলছিল।

৫ সেপ্টেম্বর সকালে সকালে রাজবাড়ী জেলার পাংশা উপজেলার কসবামাজাইল ইউনিয়নের নাদুরিয়া গড়াই নদীর ঘাট এলাকা থেকে শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

পাংশা মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ মাসুদুর রহমান বলেন, ৯৯৯ থেকে ফেনে জানতে পারি নাদুরিয়া ঘাট এলাকায় একটি মরদেহ পাওয়া গেছে । বিষয়টি কুমারখালী থানা পুলিশকে জানালে পুলিশ মরদেহটি নিয়ে যায়। 


আরও খবর