Logo
আজঃ রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২
শিরোনাম

হরিপুরে জমি নিয়ে বিরোধে কুলসুম নামে একজন মর্মান্তিকভাবে জখম

প্রকাশিত:বুধবার ০৯ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | ১৩১জন দেখেছেন
Image

জয়নাল আবেদিন: হরিপুরে জমি নিয়ে বিরোধে কুলসুম নামে একজনকে হাসুয়া এবং কোদাল দিয়ে গলায় এবং কানে আঘাত করে মর্মান্তিকভাবে জখম করেছে দুর্বৃত্তরা । গলা এবং কানে তাতে কিছু অংশ কেটে  গিয়ে প্রচুর রক্তক্ষরন হয়ে হরিপুর হাসপাতালে ভর্তি হয়।

তাদের বাড়ি হরিপুর উপজেলার ১নং গেদুরা ইউনিয়নের পঁচাঘুড়িয়া গ্রামের শেখার মোরে।

জানা গেছে দুর্বৃত্ত সলিম,সাহেদ গোলজান দেশিয় অস্থ নিয়ে কুলসুম সহতার পরিবারের লোকজনের উপর আক্রমণ করে এলোপাথারি ভাবে মারপিট করে এবং হাসুয়া দিয়ে কোপ দেয়।পরে স্থানিয় লোকজন এসে তাদের রক্ষা করে।

এই ব্যাপারে হরিপুর থানায় একটি এজহার করা হয় বলে হরিপুর থানার অসি মোঃ তাজুল ইসলাম  বিষয়টি নিশ্চিত  করেন।


আরও খবর



বাঁচতে চায় ক্যান্সার আক্রান্ত শিক্ষিকা নাহিদা সুলতানা

প্রকাশিত:শনিবার ২৬ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | ১৫জন দেখেছেন
Image


কঞ্জন কান্তি চক্রবর্তী,ঝালকাঠি প্রতিনিধি: নাহিদা সুলতানা বয়স ৪৫ বছর। তিনি ও তার স্বামী শিক্ষাকতা পেশায় নিয়োজিত আছে। তাদের ঘরে তিন বছর বয়সের একটি ফুটফুটে কন্যা সন্তান রয়েছে। আদর স্নেহে মেয়েকে অনেক বড় করার স্বপ্ন ক্যান্সার আক্রান্ত মায়ের। কিন্তু ঘাতক ব্যাধি ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে সেই স্বপ্ন যেনো দুঃস্বপ্নে পরিনত হয়েছে এই শিক্ষিকার। রোগযন্ত্রণায় কাতরাচ্ছে তিনি , একমাত্র কন্যার জন্য বাঁচার আকুতি জানিয়ে সকলের সহযোগীতা কামনা করেছেন তিনি ।

নাহিদা সুলতানা বাখেরগঞ্জ উপজেলার ৩ নং দুধল ইউনিয়নের মৃত তৈয়ব আলী খানের মেয়ে। তিনি কর্মসূত্রে বর্তমানে ঝালকাঠি জেলার রাজাপুর উপজেলা সদরের টেকনিক্যাল এন্ড বিএম কলেজের সহকারী প্রভাষক পদে কর্মরত রয়েছেন।

তিনি সকলের সহযোগীতা চেয়ে তার ফেসবুক ওয়ালে একটি পোষ্ট দিয়েছেন।

তার সেই আবেগঘন পোস্ট’টি তুলে ধরা হলো,আসসালামু আলাইকুম, প্রিয় ভাই ও বোনেরা আপনাদের সামান্য সহায়তায় বাঁচতে পারে একটি জীবন,একটি সদ্য ফোঁটা গোলাপ,আমি বাঁচতে চাই। দীর্ঘ এক বছরাধিক কাল লড়াই করে যাচ্ছি এক ঘাতক ব্যাধি ক্যান্সারের সাথে। আমি তিন বছরের কন্যা সন্তানের ৪৫ বছর বয়সী এক জননী। “জন্মিলে মরিতে হইবে” এমন চিরন্তর সত্য কথাটি উপলব্ধি করেও আজ আমি আমার সন্তানের জন্য বাঁচতে চাই।

দেশে বিদেশে বিভিন্ন ব্যয়বহুল ডায়াগনোসিস ও চিকিৎসা (ক্যামোথেরাপী) নিতে গিয়ে আমি ও আমার পরিবার আর্থিকভাবে নিঃস্ব প্রায়। আমি ও আমার স্বামী দুইজনই বেসরকারী কলেজ শিক্ষক। প্রথম দফায়ই বিভিন্ন পরীক্ষা নীরিক্ষা, সার্জারী ও উন্নত চিকিৎসা (ক্যামোথেরাপী-৮ টি) নিতে গিয়ে সহায় সম্বলহীন হয়ে পড়েছি। দ্বিতীয় দফায় আবার সেই একই চিকিৎসা শুরু করা হয়েছে, যার প্রতিটা ক্যামোথেরাপীর জন্য টেস্ট,মেডিসিন সহ প্রায় ১ লক্ষ থেকে ১ লক্ষ ২০/২৫ হাজার টাকা খরচ হয়। এ রকম আরো অন্তত  ৫/৬ টি ক্যামোথেরাপী দেয়া প্রয়োজন। প্রথম ধাপেই অনেক টাকা ধার দেনা হওয়ার কারণে কাহারো সাহায্য সহযোগিতা ছাড়া দ্বিতীয় দফায় আবার এরকম ব্যয়বহুল চিকিৎসা চালানো খুবই অসম্ভব।

তাই আজ আমি লজ্জা সরম ছেড়ে একমাত্র সন্তানের জন্য বাঁচার তাগিদে আত্মীয় স্বজন,বন্ধুবান্ধব,শিক্ষক শিক্ষার্থী,শুভানুধ্যায়ী ও বিত্তশালী সহ সকলের কাছে দোয়া ও চিকিৎসা সহায়তা কামনা করছি।

আমি বাঁচতে চাই। বাঁচতে চাই সদ্য ফোঁটা গোলাপ সম আমার ছোট্র সন্তানটির জন্য।আল্লাহর রহমত ও আপনাদের সকলের সহায়তায়ই বাঁচতে পারে এমন একটি জীবন। মায়ের আদর স্নেহ ভালবাসায় বড় হতে পারে এমন একটি ছোট্র সন্তান,যার চাহনিতে আমার হৃদয় কাড়ে,চোখেরজল ঝড়ে সব সময়। আমি আজ ওর জন্যই বাঁচতে চাই। সম্ভব হলে, সহায়তা করুন বিকাশ নং -০১৭৩১৪৯৬৩৪১.২) ব্যাংক হিসাব নং ২০৫০৩৯৩০২০০০১৫৭১৬. ইসলামী ব্যাংক, বাংলাদেশ লিঃ রাজাপুর শাখা, রাজাপুর,ঝালকাঠি।


আরও খবর



খেরসনে যুদ্ধাপরাধ করেছে রাশিয়া: জেলেনস্কি

প্রকাশিত:সোমবার ১৪ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২৬ নভেম্বর ২০২২ | ৬০জন দেখেছেন
Image

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি দাবি করেছেন, রাশিয়ার সেনারা খেরসনে যুদ্ধাপরাধ করেছে। তিনি জানান, রুশ সেনাদের দখলকৃত খেরসনে প্রায় চার শতাধিক যুদ্ধাপরাধ সংঘটিত হয়েছে। তদন্তকারীদের অনুসন্ধানে এই তথ্য উদঘাটিত হয়েছে। বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, রাশিয়া ও ইউক্রেন যুদ্ধ শুরুর পর থেকে ইউক্রেনের বুচা, ইজিয়াম ও মারিউপোলে গণকবর পাওয়া গেছে। এই নৃশংসতার জন্য রাশিয়ান সেনাদের দায়ী করেছে ইউক্রেন। 

তবে এখন পর্যন্ত বিবিসি এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করতে পারেনি। অভিযোগ অস্বীকার করে মস্কো জানিয়েছে, মস্কোর সেনারা ইচ্ছাকৃতভাবে কোনও সাধারণ নাগরিককে হত্যা করেনি।

খেরসন স্বাধীন হয়ে গেলেও ইউক্রেন কর্তৃপক্ষ শহরটিতে কারফিউ জারি করেছেন। খেরসনে যাওয়া আসা সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এক ভিডিও বার্তায় জেলেনস্কি জানান, রুশ সেনারা দেশের যেসব অঞ্চলে প্রবেশ করেছে সেখানেই নৃশংসতা করেছে। তারা খেরসনেও এই একই কাজ করে গেছে। তারা অবশ্যই এসব হত্যাকাণ্ডের বিচার করবেন।

ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেন আগ্রাসনের পর খেরসনই একমাত্র অঞ্চল যা দীর্ঘদিন ধরে রুশ সেনাদের দখলে ছিলো। গত সেপ্টেম্বরে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিন ক্রেমলিনের একটি অনুষ্ঠানে খেরসনসহ আরও তিনটি অঞ্চলকে রাশিয়ার ভূখণ্ড বলে দাবি করেন। কিন্তু শুক্রবার (১১ নভেম্বর) খেরসনকে ইউক্রেন সেনারা স্বাধীন করেছেন।

প্রায় ৩০ হাজার রাশিয়ান সেনাকে অপসারণ করার পর খেরসনের অফিসিয়াল কার্যক্রম শুরু হয়েছে। তবে অনেকের মনে আশঙ্কা রয়েছে, কিছু সংখ্যক রাশিয়ান সেনা এখনো ছদ্মবেশে ইউক্রেনে লুকিয়ে থাকতে পারে।

এ বিষয়ে দেশটির প্রেসিডেন্ট জানান, রাশিয়ার সেনাদের আটক করা হয়েছে। তবে যারা এসব নৃশংসতার পেছনে আছেন তাদের শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে। ইউক্রেনের সেনারা ইন্টারনেট ও টিভি সংযোগ করার জন্য কাজ করছেন। যতদ্রুত সম্ভব পানি ও বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হবে।



আরও খবর



ঠাকুরগাঁওয়ে হরিপুরে নবাগত ইউএনও'র মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত।

প্রকাশিত:সোমবার ০৭ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | ৮৭জন দেখেছেন
Image
মোঃ মজিবর রহমান শেখ: ৭ নভেম্বর সোমবার সকাল ১০.৩০ টায় হরিপুরে নবাগত ইউএনও' এ কে এম শরীফুল হক এর আহবানে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে হরিপুর উপজেলার স্থানীয় জনপ্রতিনিধি,রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, উপজেলা পর্যায়ের সকল কর্মকর্তাবৃন্দ,গণমাধ্যম প্রতিনিধি, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান ও এনজিও প্রতিনিধি সহ  আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত সভায়  উপস্থিত ছিলেন হরিপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ,অধ্যাক্ষ  জিয়াউল হাসান মুকুল, সভাপতি, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ।

নবাগত হরিপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একেএম শরীফুল হক, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক  এস এম আলমগীর, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বাবূ নগেন কুমার পাল, মোসলেম উদ্দিন কলেজের অধ্যক্ষ  মোঃ সৈয়দুর রহমান, হরিপুর উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান ও হরিপুর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি  মোঃ আব্দুল কাইয়ুম পুষ্প , ঠাকুরগাঁও জেলা পরিষদ সদস্য  মোঃ আনিসুজ্জামান শান্ত, কৃষি বিষয়ক কর্মকর্তা রুবেল হোসেন, শিক্ষা কর্মকর্তা  মোঃ রায়হানুল হক, হরিপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক  মোঃ মনোয়ারুল ইসলাম রিপন, হরিপুর থানা এস আই মোঃ আবু ঈসা, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ ও বিজিবির কোম্পানি কমান্ডারগণ।  উক্ত মতবিনিময় সভার আলোচনায় ভূমি সমস্যা, কৃষি বিষয়ে সংকট নিরসন, শিক্ষা ক্ষেত্রে অচলাবস্থা, চোরাচালান, মাদক দ্রব্য , শিশুপার্ক ,সাহিত্য সাংস্কৃতি বিষয়ে সংকট ,কিশোর অপরাধ,বাল্য বিবাহসহ বিবিধ সমস্যা সম্পর্কে আলোচনা করা হয়। আলোচনায় নবাগত নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, "আমি অত্র এলাকার উন্নয়নে সাধ্যানুযায়ী আন্তরিকভাবে কাজ করে যাবো, এলাকার উন্নয়নে স্ব স্ব জায়গা থেকে দায়িত্বশীল ভূমিকা আশা করছি, আপনাদের সবার সার্বিক সহযোগিতা কামনা করি"।

সম্মানিত উপজেলা চেয়ারম্যান মহোদয় হরিপুর উপজেলার গর্বিত সাফল্য আলোকপাত করেন, তবে হরিপুর উপজেলার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোর অগ্রগতিতে গুরুত্বারোপ করার  আহ্বান জানান। আরো উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা ও বিভিন্ন সুশীল সমাজের বিশিষ্ট ব্যাক্তিবর্গসহ বিভিন্ন স্তরের সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মচারী-কর্মকর্তাবৃন্দ, ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

আরও খবর



নেইমার কী পেলে হতে পারবেন?

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৪ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | ২১জন দেখেছেন
Image

আন্তর্জাতিক ফুটবল অঙ্গনে নেইমারের আর্বিভাব হয়েছিল ঢাকঢোল পিটিয়ে। কেউ কেউ আদর করে তাকে ডাকত ‘নতুন পেলে’ বলে। পেলে হওয়ার মতো অমিয় প্রতিভাও তার ছিল। কিন্তু নেইমার ঈশ্বরপ্রদত্ত প্রতিভার সঠিক ব্যবহার করে এখনো পেলে হয়ে উঠতে পারেননি। কৈশোর-তারুণ্য পেরিয়ে এখন তার বয়স ৩০। এরই মধ্যে তিনি আভাস দিয়েছেন আন্তর্জাতিক ফুটবল ক্যারিয়ারকে ‘না’ বলে দেওয়ার। আসলেই নেইমার আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের বিদায়ঘণ্টা বাজাবেন কি না, সেটা বলবে সময়। তবে নেইমার এখনো পর্যন্ত ব্রাজিলকে বিশ্বকাপ জেতাতে পারেননি।

২০১৪ ও ২০১৮ দুটি বিশ্বকাপেই ব্রাজিলিয়ানরা ‘হেক্সা’র স্বপ্ন সাজিয়েছে নেইমারকে ঘিরে। কিন্তু নেইমার তা পূরণ করতে পারেননি। এতে অবশ্য ভাগ্যেরও দায় আছে। ২০১৪ সালে নিজেদের মাটির বিশ্বকাপে দুর্দান্তই খেলছিলেন নেইমার। কিন্তু কোয়ার্টার ফাইনালে গুরুতর চোট পেয়ে বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে পড়েন। নেইমারবিহীন ব্রাজিল সেমিফাইনালে ১-৭ গোলে বিধ্বস্ত হয় জার্মানির কাছে। ২০১৮ বিশ্বকাপের আগেও চোটে ছিলেন নেইমার। তবে সুস্থ হয়ে বিশ্বকাপে খেললেও কোয়ার্টার ফাইনালেই বেলজিয়ামের কাছে হেরে যায় তাদের ব্রাজিল।

নেইমারের আভাসমতো এটাই তার শেষ বিশ্বকাপ! আর কাতার বিশ্বকাপ ঘিরে নেইমারের আত্মবিশ্বাসের পারদটাও অনেক ওপরে। মজা করে ক্লাব সতীর্থ মেসিকে বলেছেন, তাদের হারিয়ে বিশ্বকাপ জিতবেন। কিংবদন্তি পেলে থেকে শুরু করে ব্রাজিলের ১৯৯৪ বিশ্বকাপ জয়ের নায়ক রোমারিও, সবাই আশাবাদী এবার ‘হেক্সা’র স্বপ্ন পূরণ হবে। তবে স্বপ্নটাকে সত্য করতে হলে সামনে থেকে দলকে নেতৃত্ব দিতে হবে নেইমারকে। তা ব্রাজিল তারকা দুর্দান্ত ফর্মেও আছেন। ক্লাব পিএসজির হয়ে এরই মধ্যে মৌসুমে ১৯ ম্যাচে করেছেন ১৫ গোল। ক্লাবের ফর্মটা তিনি কাতারে টেনে আনতে পারলে স্বপ্নপূরণের পথে অনেকটাই এগিয়ে যেতে পারবে ব্রাজিল। তাছাড়া কোচ তিতের অধীনে ব্রাজিলের এবারের দলটিও দুর্দান্ত।

গ্যাব্রিয়েল জেসুস, রিচার্লিসন, ভিনিসিয়ুস জুনিয়র, পেদ্রো, রদ্রিগো, অ্যান্তনি—ব্রাজিল দলে গোল দেওয়ার লোকের অভাব নেই। তবে দেশকে ষষ্ঠ বিশ্বকাপ জেতাতে হলে মূল ভূমিকাটা পালন করতে হবে নেইমারকেই। নেইমার পারবেন ‘পেলে’ হয়ে নিজের এবং দেশবাসীর স্বপ্ন পূরণ করতে?

জ্বলে ওঠার জন্য নেইমারের সামনে অন্য একটি উপলক্ষ্যও আছে। কিংবদন্তি পেলেকে টপকে ব্রাজিলের হয়ে সর্বোচ্চ গোল করার রেকর্ড। রেকর্ডটি থেকে মাত্র ৩টি গোল দূরে নেইমার। জাতীয় দলের হয়ে ১২১ ম্যাচে ৭৫ গোল করেছেন তিনি। দেশের হয়ে সর্বোচ্চ ৭৭ গোল করেছেন পেলে। মানে কাতারে দুটি গোল করলেই নেইমার ছুঁয়ে ফেলবেন পেলেকে। ৩টি করলে গড়ে ফেলবেন নতুন রেকর্ড।



আরও খবর

কাতার বিশ্বকাপই কি শেষ নেইমারের ?

সোমবার ১৪ নভেম্বর ২০২২




যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর মহাসমাবেশ পরিণত হবে জনসমুদ্রে: পরশ

প্রকাশিত:বুধবার ০৯ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | ৯৪জন দেখেছেন
Image

আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ বলেছেন, ১১ নভেম্বর থেকে যুবলীগের দখলে থাকবে রাজপথ। আমরা ধারণা করছি, যুবলীগের প্রতিষ্ঠার ৫০ বছরে মহাসমাবেশ সোহরাওয়ার্দী উদ্যান জনসমুদ্রে পরিণত হবে। তিনি বলেন, আন্দোলন-সংগ্রামের নামে বিএনপি-জামায়াত যদি এদেশের সাধারণ জনগণের জানমালের ক্ষতি করার চেষ্টা করে তাহলে রাজপথেই তাদের সমুচিত জবাব দিবে যুবলীগ।

বুধবার (৯ নভেম্বর) রাজধানীর বঙ্গবন্ধুর এভিনিউয়ে আওয়ামী যুবলীগ আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।

পরশ বলেন, আওয়ামী যুবলীগের দীর্ঘ ৫০ বছরের পথ-পরিক্রমায় সকল সংকট-সংগ্রামে যুবলীগের সর্বস্তরের নেতা-কর্মীরা বীরত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে। যে মুহূর্তে দাঁড়িয়ে আমরা যুবলীগের নেতা-কর্মীরা আনন্দ, উচ্ছ্বাস ও উদ্দীপনা নিয়ে সুবর্ণজয়ন্তী পালন করছি; সেই মুহূর্তে বাংলাদেশ বিরোধী বিএনপি-জামাত স্থিতিশীল বাংলাদেশকে অস্থিতিশীল করছে। ‘চারিদিকে নাগিনীরা ফেলিতেছে বিষাক্ত নিঃশ্বাস। সেই প্রেক্ষাপটে দাঁড়িয়ে আমাদের সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন এবং ১১ নভেম্বর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুষ্ঠিতব্য যুব মহাসমাবেশ। এই মহা সমাবেশের মধ্য দিয়ে রচিত হবে স্বাধীনতাবিরোধীদের জন্য ইস্পাত-কঠিন ভিত্তি; যা বিএনপি-জামাতের কাছে অজেয়, দুর্লঙ্ঘনীয়। 



আরও খবর