Logo
আজঃ রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২
শিরোনাম

নেত্রকোনার কলমাকান্দা সীমান্তে বেড়েছে চোরাচালান, আসছে গরু,সুপারী ও মাদকদ্রব্য

প্রকাশিত:সোমবার ০৭ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | ১৩৮জন দেখেছেন
Image

নেত্রকোনা প্রতিনিধিঃ দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর আবারো বাড়ছে নেত্রকোনার কলমাকান্দা ও দুর্গাপুর সীমান্তে গরু,সুপারী,সহ মাদকদ্রব্যের চোরাচালান। সক্রিয় হয়ে ওঠেছে সীমান্তের চোরাচালানকারীরা। ভারত থেকে দুই উপজেলার বিভিন্ন পাহাড়ের পাশ কাটিয়ে চোরাকারবারীরা তাদের কাজ করে প্রশাসনের নাকের ডগায়, পাঁচ গাঁও,লেংগুড়া,খারনৈ,ও দুর্গাপুর উপজেলার ভবানীপুর,বারমারী,ও বিজয়পুর এলাকার সীমান্ত দিয়ে বাড়ছে গরু ও মাদকদ্রব্য পাচার। এতে শঙ্কিত হয়ে পড়েছেন এসব এলাকায় বসবাসকারী স্থানীয় বাসিন্দারা।

সোমবার (৭ নভেম্বর) সরেজমিন গেলে স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে ওঠে আসে এমন তথ্য।

বিশেষ সূত্রে জানা যায়, কলমাকান্দা ও দুর্গাপুর উপজেলার সীমান্তঘেষাঁ গ্রামগুলোর পাশে ভারতের মেঘালয় রাজ্যের সীমানা। এখানে সীমানা পিলারের জিরো পয়েন্টে ভারতের কাটাতারের বেড়ার নিচে বিভিন্ন স্থানে রয়েছে গোলাকৃতির কালভার্টের ফাঁক। যেখানে কাঁটাতারের বেড়া শেষ সেখানে খোলা অংশ। কোথাও নদী বা নদীর ওপর ব্রিজ। এসব কালভার্ট, খাল আর ব্রিজের ফাঁকা স্থান ব্যবহার করে চোরাকারবারিরা। বিএসএফ ও বিজিবির চোখ ফাঁকি দিয়ে এসব পথ দিয়ে চোরাকারবারীরা আনছে গরু ও মাদক দ্রব্য। 

চোরাই পথে আসা এসব গরু বেচাকেনা হচ্ছে স্থানীয় সীমান্ত এলাকা বিভিন্ন, গ্রামের বাজারে। ওইসব গ্রামের বাসিন্দারা জানান, প্রায় ৩-৪ মাস যাবত ভারতের বিএসএফের চোখ ফাঁকি দিয়ে চোরাই পথে আসছে গরু আর মাদকদ্রব্য। সপ্তাহের শনিবার দিবাগত ভোররাতেই বেশি আসে গরু। এজন্য ওইসব গ্রামে প্রতি শনিবার সন্ধ্যা হতে জড়ো হতে থাকে পাইকাররা। বেচাকেনা হয় সীমান্ত ঘেঁষা ওইসব গ্রামে। এর পর পাহাড়ি পথ বেয়ে নিয়ে আসা হয় কলমাকান্দা ও গুতুরা সহ বিভিন্ন বাজারে। গরুর সঙ্গে আসছে মাদকদ্রব্য। এসব বিক্রি হয় সিক্রেট। তবে মাদক ব্যবসায়ীদেরও আনাগোনা প্রকাশ্যেই।

বিশেষ সূত্রে জানা যায়, এসব চোরাচালানের সঙ্গে সরাসরি জড়িত আওয়ামী লীগ নাম দারি কিছু নেতা তারা আওয়ামী লীগের নাম বিক্রি করে এই ব্যবসা করে আসছেন। 

এদের মধ্যে অনেকেই মাদক ও গরুসহ একাধিকবার পুলিশ ও বিজিবির হাতে আটক হয়েছিল। জেলও খেটেছে। এ ব্যাপারে কথা হয় লেংগুরা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি সিদ্দিকের সাথে। তিনি বলেন, এখানে অনেকেই ভারতের চোরাচালানের সঙ্গে জড়িত। তাদের জিজ্ঞেস করলে তারা শুধু আমার নাম বলে। আমি এখন আর বর্ডারে যাইনা। এ ব্যাপারে অন্যদের সঙ্গে ফোনে বা সরাসরি যোগাযোগের চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি। 

কলমাকান্দা উপজেলার লেঙ্গুড়া ইউনিয়নের কালোপানি সীমান্ত ছড়া ১১৭১-৭২ পিলার পয়েন্ট দিয়ে প্রতিদিন টনের টন সুপারি বাংলাদেশ থেকে ভারতে প্রচার করছে কিছু অসাধু চোরাচালানকারীরা। রবিবার(৬ নভেম্বর) দুপুরে কালোপানি এলাকায় ঘুরতে গিয়ে এই দৃশ্য চোখে পড়ে। আমার কাছে এই দৃশ্যটা অদ্ভুত মনে হলে আমি পাহাড়ের চূড়ায় বসে বসে মোবাইল ফোনে ভিডিও ধারণ করি। দুর থেকে বুঝা যাচ্ছিল না এত লোক মাথায় বহন করে কি নিয়ে যাচ্ছে, ধান না সুপাড়ী, কাছে গিয়ে কয়েকজন সুপাড়ী বহনকারীকে জিজ্ঞেস করলে তারা জানায়, এগুলো  সুপাড়ী ভারতে যাচ্ছে।

ছড়া থেকে আরেকটু দুরে তাকিয়ে দেখি কয়েকজন সুপাড়ীর মাহাজন লেঙ্গুড়া ইউনিয়নের গৌরিপুর এলাকার সবুজ মিয়া, ফুলবাড়ি এলাকার রফিকুল, শুভ্র বনিক, রমজান, গফুর, ইয়াসিন, জহিরুল, তারা সুপাড়ী বহনকারীদের  নির্দেশ দিচ্ছে তোমরা তাড়াতাড়ি করো বিজিবি এসে পড়বে। সেখান থেকে আনুমানিক এক গজ দুরে সীমান্ত পিলার নং ১১৭২ পয়েন্টে বিজিবি টহল দিচ্ছে। অথচ বিওপির নাকের ডগা দিয়ে প্রতিদিনেই এই চোরাচালান কারবারীরা টনের টন সুপারি এপার থেকে ওপারে প্রচার করছে, বিজিবি যেনো নিরব ভূমিকায়।

আরেক সূত্রে জানা যায়, সীমান্তের চোরাচালানের নিয়ন্ত্রণ করছে লেংগুরা বর্ডারের সবুজ মিয়া। ফলে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী সীমান্তে প্রবেশ করলেই মোবাইল ফোনে সতর্ক করে দেয়। ফলে নির্ভয়েই ব্যবসা করছেন চোরাচালানকারীরা। বিনিময়ে এ দুজন তাদের কাছ থেকে গরু প্রতি নেয় দুই শ থেকে তিন শ টাকা। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক গরু চোরাচালানকারী জানান, হুন্ডির মাধ্যমে ভারতে টাকা পাঠানো হয়। সেখান থেকে নিয়ে আসা হয় গরু ও মাদকদ্রব্য। এতে রয়েছে জীবনের ঝুঁকি। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর মামলা মোকদ্দমায় অনেকে এলাকা ছাড়া। তবুও থেমে নেই গরু চোরাচালান আর মাদক ব্যবসা।

লেংগুরা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান জানান, এখানে স্থানীয় কয়েকজন জড়িত আছে। এছাড়া গৌরীপুর,, ফুলবাড়িয়া, থেকে অনেকে আসে। তাদেরকে নিষেধ করলেও তারা মানে না। 

এ ব্যাপারে লেংগুরা বিজিবি ক্যাম্প ইনচার্জের সাথে বারবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।



আরও খবর



চমক রেখেই বিশ্বকাপের দল ঘোষণা ব্রাজিলের

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৮ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | ৯৭জন দেখেছেন
Image

দেখতে দেখতেই চার বছর পেরিয়ে আবারও দোড়গোড়ায় আরেকটি বিশ্বকাপ। কাতারের মাটিতে আর কদিন পরই বসতে চলেছে দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ। বিশ্বকাপকে সামনে রেখে নিজেদের শেষ মুহুর্তের কাজগুলো সেরে রাখতে ব্যস্ত দলগুলো। এর মধ্যেই শুরু হয়েছে অংশগ্রহণকারী দেশগুলোর দল ঘোষণা। সোমবার (৭ নভেম্বর) ২৬ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে পাঁচ বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল।

বিশ্বকাপের জন্য ঘোষিত তিতের ব্রাজিল দলে জায়গা পাননি অ্যাস্টন ভিলার তারকা ফিলিপে কৌতিনহো। এমনিতেই ছিলেন না ফর্মে, তার ওপর ভিলার অনুশীলনের সময় পেশির ইঞ্জুরিতে পড়ে তিতের কাজটা সহজই করে দিয়েছেন কৌতিনহো। ব্রাজিলের বিশ্বকাপ দলে জায়গা হয়নি লিভারপুলের স্ট্রাইকার রবার্তো ফিরমিনোরও।

তবে অনেকটা চমকের মতোই কাতারগামী বিমানে ব্রাজিল দলের সঙ্গী হবেন ৩৯ বছর বয়সী দানি আলভেজ। বয়স বিবেচনায় তার জায়গা পাওয়া নিয়ে সন্দিহান থাকলেও তিতে তার অভিজ্ঞতা আর ব্যক্তিগত স্কিলকেই প্রাধান্য দিয়েছেন। এছাড়া সর্বশেষ প্রীতি ম্যাচের দলে না থাকলেও বিশ্বকাপের জন্য ডাক পেয়েছেন আর্সেনাল ফরোয়ার্ড গ্যাব্রিয়েল জেসুস। ব্রাজিলের বিশ্বকাপ স্কোয়াড:

গোলরক্ষক: অ্যালিসন বেকার (লিভারপুল), এডারসন মোরায়েস (ম্যানচেস্টার সিটি), ওয়েভারটন (পালমেইরাস)।

ডিফেন্ডার: দানিলো (জুভেন্টাস), দানি আলভেস (পুমাস), অ্যালেক্স সান্দ্রো (জুভেন্টাস), অ্যালেক্স টেলেস (সেভিলা), থিয়াগো সিলভা (চেলসি), মারকুইনহোস (পিএসজি), এডার মিলিতাও (রিয়াল মাদ্রিদ), ব্রেমার (জুভেন্টাস)।

মিডফিল্ডার: ক্যাসেমিরো (ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড), ফ্যাবিনহো (লিভারপুল), ব্রুনো গুইমারেস (নিউক্যাসল ইউনাইটেড), ফ্রেড (ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড), লুকাস পাকুয়েতা (ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেড), এভারটন রিবেইরো (ফ্ল্যামেঙ্গো)।

ফরোয়ার্ড: নেইমার জুনিয়র (পিএসজি), ভিনিসিয়াস জুনিয়র (রিয়াল মদ্রিদ), গ্যাব্রিয়েল জেসুস (আর্সেনাল), অ্যান্টনি (ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড),রাফিনহা (বার্সেলোনা), রিচার্লিসন (টটেনহ্যাম হটস্পার), গ্যাব্রিয়েল মার্টিনেলি (আর্সেনাল), রদ্রিগো (রিয়াল মাদ্রিদ), পেদ্রো (ফ্ল্যামেঙ্গো)।


আরও খবর

নেইমার কী পেলে হতে পারবেন?

বৃহস্পতিবার ২৪ নভেম্বর ২০২২

কাতার বিশ্বকাপই কি শেষ নেইমারের ?

সোমবার ১৪ নভেম্বর ২০২২




যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর মহাসমাবেশ পরিণত হবে জনসমুদ্রে: পরশ

প্রকাশিত:বুধবার ০৯ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | ৯৬জন দেখেছেন
Image

আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ বলেছেন, ১১ নভেম্বর থেকে যুবলীগের দখলে থাকবে রাজপথ। আমরা ধারণা করছি, যুবলীগের প্রতিষ্ঠার ৫০ বছরে মহাসমাবেশ সোহরাওয়ার্দী উদ্যান জনসমুদ্রে পরিণত হবে। তিনি বলেন, আন্দোলন-সংগ্রামের নামে বিএনপি-জামায়াত যদি এদেশের সাধারণ জনগণের জানমালের ক্ষতি করার চেষ্টা করে তাহলে রাজপথেই তাদের সমুচিত জবাব দিবে যুবলীগ।

বুধবার (৯ নভেম্বর) রাজধানীর বঙ্গবন্ধুর এভিনিউয়ে আওয়ামী যুবলীগ আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।

পরশ বলেন, আওয়ামী যুবলীগের দীর্ঘ ৫০ বছরের পথ-পরিক্রমায় সকল সংকট-সংগ্রামে যুবলীগের সর্বস্তরের নেতা-কর্মীরা বীরত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে। যে মুহূর্তে দাঁড়িয়ে আমরা যুবলীগের নেতা-কর্মীরা আনন্দ, উচ্ছ্বাস ও উদ্দীপনা নিয়ে সুবর্ণজয়ন্তী পালন করছি; সেই মুহূর্তে বাংলাদেশ বিরোধী বিএনপি-জামাত স্থিতিশীল বাংলাদেশকে অস্থিতিশীল করছে। ‘চারিদিকে নাগিনীরা ফেলিতেছে বিষাক্ত নিঃশ্বাস। সেই প্রেক্ষাপটে দাঁড়িয়ে আমাদের সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন এবং ১১ নভেম্বর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুষ্ঠিতব্য যুব মহাসমাবেশ। এই মহা সমাবেশের মধ্য দিয়ে রচিত হবে স্বাধীনতাবিরোধীদের জন্য ইস্পাত-কঠিন ভিত্তি; যা বিএনপি-জামাতের কাছে অজেয়, দুর্লঙ্ঘনীয়। 



আরও খবর



বাবার পর ভারতে ছেলেও প্রধান বিচারপতি, শপথ নিলেন ধনঞ্জয় চন্দ্রচূড়

প্রকাশিত:বুধবার ০৯ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | ৮৩জন দেখেছেন
Image

ভারতের ৫০তম প্রধান বিচারপতি হিসেবে শপথগ্রহণ করেছেন বিচারপতি ধনঞ্জয় যশবন্ত চন্দ্রচূড়। বুধবার রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মু চন্দ্রচূড়কে শপথবাক্য পাঠ করান। মঙ্গলবারই সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির পদ থেকে অবসর গ্রহণ করেছেন উদয় উমেশ ললিত। শপথ নেওয়ার পরেই চন্দ্রচূড় বলেছেন, “আমার কাজ কথা বলবে”।

১১ অক্টোবর কেন্দ্রীয় সরকারকে চিঠি লিখে বিচারপতি ললিত তার উত্তরসূরি হিসেবে চন্দ্রচূড়ের নাম প্রস্তাব করেছিলেন। কেন্দ্রীয় আইন মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে চন্দ্রচূড়ের নাম রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠানো হলে তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে সম্মতি জানান। 

চন্দ্রচড়ের বাবা যশবন্ত বিষ্ণু (ওয়াই ভি) চন্দ্রচূড় আট বছর (১৯৭৮-১৯৮৫) ভারতের প্রধান বিচারপতি ছিলেন। এত দীর্ঘ সময় ধরে ভারতে কেউ প্রধান বিচারপতি পদে থাকেননি। পিতা এবং পুত্র দু’জনেই ভারতের প্রধান বিচারপতি হচ্ছেন, এমন নজিরও আগে দেখা যায়নি। ২০১৬ সালে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি হিসেবে কাজ শুরু করা চন্দ্রচূড় প্রধান বিচারপতির পদে ২০২৪ সালের ১০ নভেম্বর পর্যন্ত থাকবেন। 

সূত্র : আনন্দবাজার


আরও খবর



কাতার বিশ্বকাপই কি শেষ নেইমারের ?

প্রকাশিত:সোমবার ১৪ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | ৭৫জন দেখেছেন
Image

নেইমারকে সম্ভবত আর দেখা যাবে না পরের বিশ্বকাপে। নিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে বড় কথা বলে দিলেন তিনি। ক্যারিয়ারের তৃতীয় বিশ্বকাপ খেলতে নামছেন ব্রাজিল সুপারস্টার। তার আগেই কাতার বিশ্বকাপের দল ঘোষণা করে দিয়েছে কোচ তিতের ব্রাজিল। ২৬ সদস্যের শক্তিশালী স্কোয়াড হয়েছে দলের তারকা ফুটবলার নেইমারকে নিয়েই। ২০১৪ এবং ২০১৮ সালের পর জীবনের তৃতীয় বিশ্বকাপ খেলতে নামছেন তিনি। তবে ২০২৬ বিশ্বকাপে তাকে হয়তো আর দেশের জার্সিতে নাও দেখা যেতে পারে। কাতারের মাটিতে নামার আগেই নেইমার জানিয়ে দিলেন তার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা।

নেইমার এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘আমি শেষ বিশ্বকাপ মনে করেই খেলব। আমি এই নিয়ে বাবার সঙ্গে কথা বলব। আমাদের সবসময় ফুটবল নিয়ে কথা হয়। আমি প্রতিটি ম্যাচই শেষ ম্যাচ মনে করে খেলব। কারণ কেউ জানে না কাল কী হবে। আমি পরের বিশ্বকাপে খেলব কি না, সে ব্যাপারে কোনো গ্যারান্টি দিতে পারছি না। আমি সত্যিই জানি না। হয়তো খেলতে পারি, আবার নাও পারি। আমাদের কোচ বদলে যাবে এই বিশ্বকাপের পর। আমি জানি না নতুন যিনি আসবেন, তিনি আমাকে পছন্দ করবেন কি না! জাতীয় দলের সঙ্গে আমার দীর্ঘ ইতিহাস। আশা করি, শেষটা ভালো ভাবেই করব।’

ব্রাজিলের জার্সিতে সবচেয়ে বেশি গোল করার নজির রয়েছে কিংবদন্তি পেলের। তার ঠিক পরেই রয়েছে নেইমার। পেলে করেছেন ৭৭ গোল। নেইমারের রয়েছে ৭৫ গোল। বিশ্বকাপে দুই গোল করে তিনি পেলেকে স্পর্শ করবেন। আর তিন গোল করলে  পেলেকে ছাপিয়ে ইতিহাস লিখবেন দেশের জার্সিতে। রেকর্ডের প্রসঙ্গে নেইমার বলেন, ‘ব্রাজিলের হয়ে খেলা স্বপ্নের মতো। আমি কখনো নম্বরের কথা ভাবিনি। কাউকে কখনো ছাপিয়ে যেতেও চাইনি। না ইচ্ছা ছিল রেকর্ড ভাঙারও। আমি শুধু ফুটবলই খেলতে চেয়েছিলাম।’ পাঁচ বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল ২৫ নভেম্বর সার্বিয়ার বিরুদ্ধে বিশ্বকাপ অভিযানে নামছে।


আরও খবর

নেইমার কী পেলে হতে পারবেন?

বৃহস্পতিবার ২৪ নভেম্বর ২০২২




১৮ নভেম্বর ঢাকায় আসছেন নোরা ফাতেহি, মিলেছে অনুমতি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৮ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | ৯২জন দেখেছেন
Image

সব জল্পনা-কল্পনা কাটিয়ে এবার ঢাকায় আসার অনুমতি পেলেন বলিউড ‘হার্টথ্রোব’ তারকা নোরা ফাতেহি। তাকে বাংলাদেশে আসা ও থাকার অনুমতি দিয়েছে মন্ত্রণালয়। 

সোমবার সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মোহাম্মদ খালেদ হোসেন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিষয়টি উইমেন লিডারশিপ করপোরেশনের প্রতিষ্ঠাতা মারিয়া মৃত্তিক স্বর্ণা নিশ্চিত করেন। তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘বলিউড অভিনেত্রী নোরা ফাতেহির বাংলাদেশে আসা নিয়ে অনেক জলঘোলা পরিবেশের সৃষ্টি হলেও অবশেষে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত পাওয়া গেছে।’

নোরা ফাতেহির বাংলাদেশ সফরে আর কোনো আইনি জটিলতা নেই। ১৮ নভেম্বর বাংলাদেশে আসছেন বলে তিনি নিশ্চিত করেছেন।

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় থেকে অনুমতির একটি চিঠি ইস্যু করা হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে— উইমেন লিডারশিপ করপোরেশনের উদ্যোগে ‘উইমেন এমপাওয়ারমেন্ট ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক ডকুমেন্টারির শুটিংয়ে অংশগ্রহণের নিমিত্তে ভারতীয় অভিনেত্রী মিস নোরা ফাতেহিকে শর্তসাপেক্ষে বাংলাদেশে আসার অনুমতি দেওয়া হলো।

এর পর পাঁচটি শর্ত দেওয়া হয়। তার একটিতে বলা হয়েছে— নোরা ফাতেহিকে আগামী ১৮ নভেম্বর একদিন (যাতায়াত সময় ব্যতীত) বাংলাদেশে অবস্থান করে প্রামাণ্যচিত্র শুটিংয়ে অংশগ্রহণ করতে হবে। এর বাইরে এই সময়ে তিনি অন্য কোনো কাজে বা অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে পারবেন না।

এর আগে একই প্রতিষ্ঠানের ‘গ্লোবাল অ্যাচিভারস অ্যাওয়ার্ড-২০২২’-এ অংশ নিতে ঢাকায় আসার কথা ছিল ভারতীয় এ অভিনেত্রী ও নৃত্যশিল্পীর। কিন্তু সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় তখন তাকে আসার অনুমতি দেয়নি।


আরও খবর