Logo
আজঃ সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২
শিরোনাম

রাজধানীর যাত্রাবাড়ী হতে গাঁজাসহ ০২ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৭২জন দেখেছেন
Image

০৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ র‌্যাব-১০ এর একটি আভিযানিক দল রাজধানী ঢাকার যাত্রাবাড়ী থানাধীন শনির আখড়া এলাকায় একটি অভিযান পরিচালনা করে আনুমানিক ৮,৪০,০০০ টাকা মূল্যের ২৮ কেজি গাঁজাসহ ০২ জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিদের নাম ১। মোঃ আসাদুল (৩৬) ও ২। মোঃ আমিরুল ইসলাম হৃদয় (৩০) বলে জানা যায়। এসময় তাদের নিকট থেকে মাদক পরিবহনে ব্যবহৃত ০১টি পিকআপ ও ০১টি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিরা পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী। তারা বেশ কিছুদিন যাবৎ যাত্রাবাড়ীসহ ঢাকা শহরের বিভিন্ন এলাকায় গাঁজাসহ অন্যান্য মাদকদ্রব্য সরবরাহ করে আসছিল বলে জানা যায়।

গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় মাদক মামলা রুজু করা হয়েছে।


আরও খবর



রাজকে ইঙ্গিত করে যে পোস্ট দিলেন পরীমনি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৭৯জন দেখেছেন
Image

মাতৃত্বের সুখানুভূতি পেয়েছেন চিত্রনায়িকা পরীমনি। রাজপুত্র রাজ্যকে ঘিরেই এখন সময় কাটছে রাজ-পরীমনি দম্পতির। 

মাতৃত্ব যে তিনি এনজয় করেছেন সেটি একটি পোস্টে বুঝিয়ে দিয়েছেন। নিজের গর্ভাবস্থার দিনগুলো মিস করছেন বলে জানিয়েছেন ঢালিউড নায়িকা। শনিবার রাতে ফেসবুক পরীমনি লিখেছেন, ‘আমি আমার গর্ভাবস্থার দিনগুলো খুব মিস করছি। পেটের মধ্যে কেউ নড়ে না, আমার ভাল্লাগে না।’ সেই পোস্টের নিচে স্বামী অভিনেতা শরিফুল রাজকে মেনশন দিয়ে তিনি বুঝিয়ে দিয়েছেন, কথাগুলো তাকেই বলছেন!

সেখানে রাজ এসে মন্তব্য করেছেন, ‘তোমাকে মনে পড়ছে পরী।’

পোস্টের নিচে পরীমনির বন্ধু-শুভাকাঙক্ষীও কমেন্ট করেছেন। তারা নায়িকার মাতৃত্বের অনুভূতির প্রতি ভালোবাসা জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, গত বছরের ১৭ অক্টোবর গোপনে বিয়ে করেন পরীমনি ও শরিফুল রাজ। চলতি বছরের ১০ জানুয়ারি সেই খবর প্রকাশ্যে আনেন তারা। একইদিন সন্তানধারণের বার্তাটিও দেন এ দম্পতি। এরপর ২২ জানুয়ারি পারিবারিক আয়োজনে বিয়ে সারেন। গত ১০ আগস্ট তাদের ঘর আলো করে এসেছে পুত্রসন্তান। যার নাম শাহীম মুহাম্মদ রাজ্য। তাকে নিয়েই ব্যস্ত সময় পার করছেন ঢালিউড দম্পতি।


আরও খবর

যৌনপল্লীতে নায়িকা নিপুণ আক্তার !

বৃহস্পতিবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২




চারঘাটে সমমানের পরীক্ষা শান্তিপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ২৭জন দেখেছেন
Image

চারঘাট (রাজশাহী) প্রতিনিধি: সারাদেশের ন্যায় রাজশাহীর চারঘাট উপজেলায় এসএসসি,ভোকেশনাল ও দাখিল সমমানের পরীক্ষা শান্তিপূর্ণভাবে ও নকলমুক্ত পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় উপজেলার ৯টি কেন্দ্রে এসএসসি ২ হাজার ১২জন, দাখিল ২শ ৪৪ জন, ভোকেশনাল ও দাখিল ৮ শ ১৩ জন বাংলা প্রথমপত্রে মোট ৩ হাজার ৬৯ জন শিক্ষার্থী এই পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করেন। 

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহরাব হোসেন প্রতিটিি কেন্দ্রে পরিদর্শন করে জানান, সুষ্ঠু,সুন্দর ও নকলমুক্ত শান্তিপূর্ণ পরিবেশে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। 



আরও খবর



গাইবান্ধা-৫ আসনে ভোটকেন্দ্রের তালিকা প্রস্তুতের নির্দেশ

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৯৯জন দেখেছেন
Image

গাইবান্ধা-৫ আসনের উপ-নির্বাচনে ভোটকেন্দ্রের তালিকা আগামী ৬ সেপ্টেম্বরের মধ্যে প্রস্তুত করার নির্দেশনা দিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। 

বিষয়টি নিশ্চিত করে ইসির নির্বাচন ব্যবস্থাপনা শাখার উপ-সচিব খোরশেদ আলম বলেন, নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনাটি ইতোমধ্যে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে পাঠানো হয়েছে।

ইসির নির্দেশনায় বলা হয়েছে, গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ, ১৯৭২ এর ৮ অনুচ্ছেদের (১) দফা অনুসারে রিটার্নিং অফিসারকে সংসদ নির্বাচনে প্রত্যেক নির্বাচনী এলাকার জন্য ভোটকেন্দ্রের স্থান এবং ভোটাররা যে যে ভোটকেন্দ্রে ভোট দেবেন, সে সব স্থানের নাম উল্লেখপূর্বক ভোটকেন্দ্রের ৩ (তিন) প্রস্থ তালিকা (সফট কপিসহ) ৬ সেপ্টেম্বর মধ্যে বিশেষ দূত মারফত নির্বাচন কমিশনে দাখিল করতে হবে।

২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যেসব ভোটকেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছিল শূন্য আসনটির নির্বাচনেও ওই সব ভোটকেন্দ্র বহাল রাখতে হবে। তবে কোনো ভোটকেন্দ্র কোনো প্রার্থীর প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে প্রভাবাধীন হলে তা কমিশনকে অবহিত করতে হবে। এছাড়াও উল্লিখিত নির্বাচনী এলাকার বেশি গুরুত্বপূর্ণ ভোটকেন্দ্রের নাম নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ে পাঠাতে হবে।

তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় ১৩ সেপ্টেম্বর, বাছাই ১৫ সেপ্টেম্বর, আপিল ১৬ থেকে ১৮ সেপ্টেম্বর, আপিল নিষ্পত্তি ১৯-২১ সেপ্টেম্বর, প্রার্থিতা প্রত্যাহার ২২ সেপ্টেম্বর। আর ভোটগ্রহণ হবে ১২ অক্টোবর।


আরও খবর

২২ দিন ইলিশ ধরা-বিক্রি নিষিদ্ধ

বৃহস্পতিবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২




ঢাক-ঢোল জারি সারি গান ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচের ফাইনাল অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:রবিবার ১১ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৬৭জন দেখেছেন
Image
সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি: ঢাক-ঢোল ও জারি সারি গানের তালে আবহমান গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহি ধারণ করে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে বড়াল নদীতে ড. মজহারুল ইসলাম স্মৃতি নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা প্রতিযোগিতা ২০২২ এর ফাইনাল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার (১০ সেপ্টেম্বর) বিকেল উপজেলার বাঘাবাড়ীর বড়াল নদীতে অনুষ্ঠিত এ প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছে চর-আঙ্গারুর শাপলা এক্সপ্রেস। এ খেলায় রানার্সআপ হয়েছে বনগ্রামের নিউ উড়ন্ত বলাকা। 

গত ১৯ আগস্ট শুরু হওয়া ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ ফাইনাল প্রতিযোগিতার মাধ্যমে এ খেলা শেষ হয়েছে।  নদীর দুই পাড়ে লাখো মানুষের নিখাদ বিনোদনের খোরাক, বাঙালি সংস্কৃতির আদি ঐতিহ্য এ নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে উত্তরবঙ্গ ট্যাংকলরি শ্রমিক ইউনিয়ন। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিরাজগঞ্জ- ৬ (শাহজাদপুর) আসনের সংসদ সদস্য প্রফেসর মেরিনা জাহান কবিতা।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শাহজাদপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ তরিকুল ইসলাম, সাবেক সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি চয়ন ইসলাম, কেন্দ্রীয় আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. সাজ্জাদ হায়দার লিটন, পৌরসভার মেয়র মনির আক্তার খান তরু লোদী, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপ কমিটির সদস্য সুমগ্ন করিম, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মুস্তাক আহমেদ প্রমূখ।

ঐতিহাসিক ফাইনাল নৌকা বাইচ দেখতে নদীর তীরে শত শত ছোট বড় নৌকায় সিরাজগঞ্জ, পাবনা ও নাটোরের হাজার হাজার নারী পুরুষের সমাগম ঘটে। এসময় বাঘাবাড়ি ব্রীজের উপর দাঁড়িয়ে হাজারো মানুষকে এ ফাইনাল নৌকা 
 বাইচ উপভোগ করতে দেখা গেছে। 

কেউ কেউ নিজস্ব নৌকায় নানা রকম সাজে সজ্জিত হয়ে নেচে গেয়ে উৎসবকে আরো রঙিন করে তোলেন। ঐতিহ্যবাহী এই নৌকা বাইচের সময় বাইচালরা ঢাক, ঢোল ও করতালের বাজনা আর জারি-সারি গানের তালে তালে বৈঠা চালিয়ে উপস্থিত দর্শকদের আনন্দে মাতিয়ে তোলেন।

নৌকা বাইচের আয়োজক ও উত্তরবঙ্গ ট্যাংকলরি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি শাহজাহান সিরাজ বলেন, দীর্ঘ ১০ বছর পর বাঘাবাড়ী বড়াল নদীতে নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতার ফাইনাল খেলা শেষ হয়েছে। বাইচের প্রথম দিনে ১০ হাজারেরও বেশি মানুষ নৌকা বাইচ উপভোগ করেন। সিরাজগঞ্জ- পাবনা জেলার প্রায় ২৪টি নৌকা এ বাইচে
অংশ গ্রহণ করেছেন। লীগ ভিত্তিক এ প্রতিযোগিতার ফাইনালে মোটরসাইকেল, টেলিভিশন ও ফ্রিজ পুরস্কার দেওয়া হয়েছে।

ডিজিটাল যুগে আধুনিকতার ছোঁয়ায় গ্রাম বাংলার অনেক ঐতিহ্যই যখন হারিয়ে যেতে বসেছে, সংস্কৃতির সেই ক্রান্তিকালে বাঙালির হাজার বছরের ঐতিহ্যকে টিকিয়ে রাখতে নৌকা বাইচের আয়োজন সত্যিই প্রশংসার দাবি রাখে।

আরও খবর



শিরক থেকে দূরে থাকতে হবে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৩৭জন দেখেছেন
Image

শিরক একটি আরবি শব্দ যার অর্থ অংশ। ইসলামী পরিভাষায় সর্বশক্তিমান আল্লাহতায়ালার সঙ্গে কাউকে শরিক করা, কাউকে তাঁর সমকক্ষ ভাবা কিংবা অংশীদার করাকে শিরক বলে।

এটি একটি জঘন্য অপরাধ এবং কবিরা গুনাহ। মহান সর্বশক্তিমান আল্লাহতায়ালা শিরককে বড় মিথ্যা এবং জুলুম বলে আখ্যায়িত করেছেন। রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের হাদিসে বলা হয়েছে- আল্লাহ তার বান্দার যে কোনো গুনাহকে ক্ষমা করে দেন। কিন্তু শিরকের গুনাহকে ক্ষমা করেন না। আমাদের সমাজে আল্লাহতায়ালার সঙ্গে বিভিন্নভাবে এবং বিভিন্ন পন্থায় শিরক করা হয়ে থাকে। মানুষ পাথর, অগ্নি, গাছ ও কবর পূজা ইত্যাদির মাধ্যমে শিরক করে। তা ছাড়া ব্যবসা-বাণিজ্য, চাকরি-বাকরি, বিবাহশাদি, রোগ-শোক, আয়-রোজগার ইত্যাদির ক্ষেত্রেও বিভিন্নভাবে এবং বিভিন্ন পন্থায় শিরক করা হয়। শিরক চার ভাগে বিভক্ত করা হয়েছে। ১. আল্লাহর মূল সত্তায় শিরক, ২. আল্লাহর গুণাবলিতে শিরক, ৩. আল্লাহর অধিকারে শিরক, ৪. আল্লাহর এখতিয়ারে শিরক। পবিত্র কোরআনে শিরকের পরিণাম সম্পর্কে সতর্ক করে বলা হয়েছে- এটি একটি ক্ষমাহীন অপরাধ।

ইরশাদ করা হয়েছে, ‘নিশ্চয়ই আল্লাহ তাকে ক্ষমা করেন না, যে তার সঙ্গে কাউকে শরিক করে। এ ছাড়া যাকে ইচ্ছা ক্ষমা করেন এবং কেউ আল্লাহর সঙ্গে শরিক করলে সে ভীষণভাবে পথভ্রষ্ট হয়। তারা তার পরিবর্তে শুধু দেবীরই পূজা করে এবং বিদ্রোহী শয়তানের পূজা করে।’ (৪-সুরা নিসা : ১১৬-১১৭)। যারা আল্লাহ ব্যতীত অন্য কাউকে উপাস্য হিসেবে মানে তারা পথভ্রষ্ট। ইরশাদ করা হয়েছে- স্মরণ কর, যখন ইবরাহিম তার পিতা আজরকে বললেন : ‘তুমি কি প্রতিমাগুলোকে উপাস্য মনে কর? আমি দেখতে পাচ্ছি যে, তুমি ও তোমার সম্প্রদায় প্রকাশ্য পথভ্রষ্ট।’ (৬ সুরা আনয়াম : ৭৪)। আল্লাহ মানুষকে সৃষ্টি করেছেন তার ইবাদতের জন্য। শিরকমুক্ত ইবাদতের মাধ্যমে বান্দা আল্লাহর সন্তুষ্টি বিধান করতে পারে।

সর্বশেষ ও শ্রেষ্ঠ নবী মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের নির্দেশিত পথে আল্লাহর ইবাদত করতে হবে। হজরত আদম (আ.)-এর মাধ্যমে দুনিয়ার বুকে প্রথম নবীর আগমন, মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের আগমনের মাধ্যমে পৃথিবীতে নবী রসুলের আগমন পর্বের সমাপ্তি টানা হয়েছে। মহানবী মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের পর পৃথিবীতে আর কোনো নবী আসবেন না। তিনি হলেন বিশ্ববাসীর জন্য মনোনীত নবী।

কেয়ামত পর্যন্ত যত মানুষ পৃথিবীতে আসবে তারা তার উম্মতের মধ্যেই গণ্য হবে। রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আল্লাহর পথে মানুষকে ডাকার এ মহান জিম্মাদারি তার উম্মতের মধ্যে যারা কোরআন হাদিসের জ্ঞানে জ্ঞানী তাদের ওপর দিয়েছেন। মহানবীর আগে যে হাজার হাজার নবী রসুল এসেছেন তাদের বিশেষ সম্প্রদায়ের নবী রসুল হিসেবে পৃথিবীতে পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু আখেরি নবীর আগমন ঘটেছে সমগ্র মানবজাতির জন্য। ইরশাদ করা হয়েছে- ‘হে নবী আমি তোমাকে সারা বিশ্বের জন্য রহমত হিসেবে প্রেরণ করেছি।’ (২১ সুরা আম্বিয়া : ১০৭)।


আরও খবর

মৃতদের জন্য জীবিতদের করণীয়

বৃহস্পতিবার ১৮ আগস্ট ২০২২

শোকের মাস মহররম

বৃহস্পতিবার ১১ আগস্ট ২০২২