Logo
আজঃ রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২
শিরোনাম

র‌্যালি ও আলোচনার মধ্যে দিয়ে বিশ্ব নদী দিবস পালিত

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | ১৪৩জন দেখেছেন
Image

সৈকত শতদল: পাংশা  উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে আজ ২৫ সেপ্টেম্বর  রবিবার বিকেলে র‌্যালি ও আলোচনা অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে রাজবাড়ীর পাংশায় বিশ্ব নদী দিবস পালিত হয়েছে।

র‌্যালি শেষে উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে  উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মাদ আলীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় সংক্ষিপ্ত বক্তব্য প্রদান করেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রতন কুমার,পাংশা প্রেস ক্লাবের সহ সভাপতি সেলিম মাহমুদ প্রমুখ। অনুষ্ঠান সজ্ঞালনা করেন উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা শ্যামল কুমার বিশ্বাস।

উল্লেখ্য এবারের দিবসটির প্রতিপাদ্য ‘আমাদের জনজীবনে নৌপথ’। জনজীবনে নৌপথের সম্পৃক্ততা বাড়াতেই এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় নির্ধারণ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ নদীমাতৃক দেশ। আমাদের দেশে নদী ও মানুষের জীবন অবিচ্ছেদ্য। সে কারণেই আমাদের মৃতপ্রায় নদী নিয়ে পরিবেশবাদীসহ সাধারণ মানুষের উদ্বেগ লক্ষ্য করা যায়। যদিও নদী রক্ষার তৎপরতা পৃথিবীজুড়েই দেখা যায়। নদী সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে প্রতি বছর সেপ্টেম্বর মাসের শেষ রোববার পালন করা হচ্ছে বিশ্ব নদী দিবস।

১৯৮০ সাল থেকে প্রতি বছর সেপ্টেম্বর মাস থেকে বিশ্ব নদী দিবস হিসেবে পালন করতে শুরু করে কানাডার ব্রিটিশ কলম্বিয়া ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি। যার আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়েছিল বিসি রিভারস ডে পালন দিয়ে। ১৯৮০ সালে কানাডার খ্যাতনামা নদীবিষয়ক আইনজীবী মার্ক অ্যাঞ্জেলো দিনটি ‘নদী দিবস’ হিসেবে পালনের উদ্যোগ নিয়েছিলেন। বিসি রিভারস ডে পালনের সাফল্যের হাত ধরেই তা আন্তর্জাতিক রূপ পায়।

২০০৫ সালে জাতিসংঘ নদী রক্ষায় জনসচেতনতা তৈরি করতে ‘জীবনের জন্য জল দশক’ ঘোষণা করে। সে সময়ই জাতিসংঘ দিবসটি অনুসমর্থন করে। এরপর থেকেই জাতিসংঘের বিভিন্ন সহযোগী সংস্থা দিবসটি পালন করছে, যা দিনদিন বিস্তৃতি হচ্ছে। বাংলাদেশে ২০১০ সাল থেকে এ দিবস পালিত হচ্ছে।


আরও খবর



নেত্রকোনায় পুলিশের মাসিক অপরাধ সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:বুধবার ১৬ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | ৬০জন দেখেছেন
Image
সোহেল খান দূর্জয় : নেত্রকোনায় পুলিশের মাসিক অপরাধ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার (১৫ নভেম্বর) দুপুর ১২টার দিকে পুলিশ সুপার কার্যালয়ে সম্মেলন কেন্দ্রে এই মাসিক অপরাধ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

নেত্রকোণা জেলা পু‌লিশ লাই‌ন্সে মা‌সিক কল্যাণ সভা ও পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে অ‌ক্টোবর মাসের 'মাসিক অপরাধ সভা' অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন নেত্রকোণা জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার মোঃ ফ‌য়েজ আহ‌মেদ। অপরাধ সভায় জেলার সার্বিক আইন-শৃংঙ্খলা বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা হয় এবং অ‌ক্টোবর মাসের কৃতিত্বপূর্ণ কাজের জন্য পুরুস্কৃত করা হয়। নেত্র‌কোণা জেলায় (১৫ অ‌ক্টোবর ২০২২) শে শ্রেষ্ঠ অ‌ফিসারগ‌ণের তা‌লিকা,শ্রেষ্ঠ সার্কেল অফিসার

মোর‌শেদা খাতুন, অ‌তি‌রিক্ত পুলিশ সুপার, সদর সার্কেল,শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ খন্দকার শাকের আহমেদ,অফিসার ইনচার্জ নেত্রকোণা মডেল থানা,শ্রেষ্ঠ আই‌সি মুহাম্মদ রা‌শেদুল ইসলাম,পু‌লিশ প‌রিদর্শক (নিঃ) শ্যামগঞ্জ তদন্ত কেন্দ্র,শ্রেষ্ঠ এসআই এসআই(নিঃ)/মোঃ কাকন নেত্র‌কোণা মডেল থানা,শ্রেষ্ঠ ডিবি অফিসার এসআই(নিঃ)/মোঃ তাহের উদ্দিন জেলা গোয়েন্দা শাখা,শ্রেষ্ঠ ট্রাফিক অফিসার
টিএসআই/মোঃ আকবর হো‌সেন সদর ট্রাফিক, শ্রেষ্ঠ এএসআই এএসআই(নিঃ)/মামুন ইবনে হেলাল কলমাকান্দা থানা। নেত্র‌কোণা জেলায় অ‌ক্টোবর/২০২২ খ্রি. বি‌শেষ পুরষ্কার প্রাপ্ত অ‌ফিসারগ‌ণের তা‌লিকা,এএসআই/আবুল হোসেন আইসিটি শাখা এএসআই/ এনা‌য়েত কবির শ্যামগঞ্জ পু‌লিশ তদন্ত কেন্দ্র।এসময় পুরস্কৃতদের হাতে ক্র্যাশ তুলে দেন পুলিশ সুপার ফয়েজ আহমেদ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন- অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) হারুন উর রশীদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ( প্রশাসন) ফখরুজ্জামান জুয়েল পিপিএম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোর্শেদা খাতুন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (দুর্গাপুর সার্কেল) মাহমুদা শারমিন নেলী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বারহাট্টা সার্কেল) মো. সাইদুর রহমান, ডিষ্ট্রিক্ট প্রফেশনাল ব্রাঞ্চ ডিষ্ট্রিক্ট ইন্টেলিজেন্স অফিসার মিজানুর রহমান, জেলা গোয়েন্দা শাখার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ডিবি (ওসি)পূর্ব মোঃ সায়েদুর রহমান, জেলা গোয়েন্দা শাখার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ডিবি (ওসি) পশ্চিম আবুল কালাম পিপিএম সহ, সব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা(ওসি)।

সভায় জেলার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি, কমিউনিটি পুলিশিং কার্যক্রম জোরদার, গ্রেফতারি পরোয়ানা তামিল, স্পর্শকাতর মামলা সমূহের অগ্রগতি ও জেলার গোয়েন্দা কার্যক্রমসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করা হয়।


আরও খবর



চারঘাটে হত্যা মামলার আসামী লিটন গ্রেফতার

প্রকাশিত:সোমবার ২১ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | ৪৯জন দেখেছেন
Image

চারঘাট (রাজশাহী) প্রতিনিধিঃ রাজশাহীর চারঘাটে পুলিশের বিশেষ অভিযান চালিয়ে হত্যা মামলার পলাতক আসামী লিটনকে গ্রেফতার করেছে মডেল থানা পুলিশ।

থানা সূত্রে জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রবিবার দুপুরে এসআই আমানউল্লাহ, এএসআই আব্দুল জলিল ও সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে সরদহ ইউনিয়নের হুজারপাড়া নামক স্থানে শশুড়বাড়ি থেকে লিটনকে আটক করে পুলিশ। তিনি দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন এলাকায় আতœ গোপন করে ছিলেন। এমন সংবাদের ভিত্তিতে তাকে রবিবার দুপুওে শশুড়বাড়িতে অবস্থান করে। পরে সে পুলিশের উপস্থিতিতে টের পেয়ে পালানো অবস্থায় আখক্ষেতে দৌড়ে তাকে আটক করা হয়।  আটককৃত হলেন উপজেলার সরদহ হুজারপাড়াা গ্রামের জহুরুল ইসলাম ওরফে ঝড়– মন্ডল ছেলে লিটন আলী (২২)। 

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মাহবুবুল আলম বলেন, জিআর-১৩১/২২ হত্যা মামলার পলাতক আসামী লিটনকে গ্রেফতার করে দুপুরে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরন করা হয়েছে বলে জানান ।


আরও খবর



ইউক্রেনের পাশ থেকে কি সরে যাবে ইউরোপ?

প্রকাশিত:সোমবার ০৭ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | ৮৫জন দেখেছেন
Image

দীর্ঘ আট মাস পেরিয়ে গেছে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ। এরই এই যুদ্ধে মধ্যে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে ইউক্রেন। হাতছাড়া হয়েছে লুহানস্ক, ডোনেটস্ক, খেরসন ও জাপোরিঝঝিয়ার মতো গুরুত্বপূর্ণ চারটি অঞ্চল। যদিও এগুলো পুনরুদ্ধারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে, তবে এসব ভূখণ্ড রুশ ভূমির সঙ্গে রাখার তীব্র প্রচেষ্টা চালাচ্ছে রাশিয়া। ইতোমধ্যে খেরসনে বিপজ্জনক অভিযানের ঘোষণা দিয়েছে রুশ কর্তৃপক্ষ। এ লক্ষ্যে সেখান থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে বেসামরিক লোকজনকে।

এদিকে, দীর্ঘ এই যুদ্ধে ইউক্রেনকে পাশে থেকে সহায়তা করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ ইউরোপী ইউনিয়নের দেশগুলো। যুদ্ধে সহায়তা করতে গিয়ে অর্থনৈতিক টালমাটাল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে ইউরোপজুড়ে। বেসামাল হয়ে পড়েছে মূল্যস্ফীতি। এমতাবস্থায় ইউক্রেনের পাশ থেকে ইউরোপের সরে যাওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে।

ইউরোপে শুরু হয়েছে শীতকাল। যুদ্ধের কারণে ওই অঞ্চলে দেখা দিয়েছে জ্বালানিসংকট। হু হু করে বাড়ছে জিনিসপত্রের দাম। ফলে মূল্যস্ফীতি চরমে পৌঁছেছে। যুদ্ধ আরও দীর্ঘায়িত হলে এই সংকট আরও ভয়াবহ রূপ নেবে। তখন অর্থনৈতিক পরিস্থিতি আরও বেসামাল হয়ে পড়বে। এমতাবস্থায় ইউক্রেনকে সহায়তা দেওয়া বন্ধ করতে পারে ইউরোপ- এমন আশঙ্কা করা হচ্ছে।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল–জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইউরোপ অনেকটাই রাশিয়ার জ্বালানিসম্পদের ওপর নির্ভরশীল। ফলে ইউক্রেন যুদ্ধ শুরুর পর রাশিয়ার ওপর বিপুল নিষেধাজ্ঞা জারি সত্ত্বেও দেশটিকে দমন করা যায়নি। আর ইউরোপের এই জ্বালানি নির্ভরতার কারণেই ইউরোপের যেসব দেশ ইউক্রেনের পাশে দাঁড়িয়েছে, দেশগুলোকে ধরাশায়ী করতে জ্বালানিকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করছে মস্কো।

যদিও ইউরোপের ওই দেশগুলোও বসে নেই। রাশিয়া থেকে প্রাকৃতিক গ্যাস আমদানি বন্ধ করতে নানা উদ্যোগ নিয়েছে তারা। এখন তাদের অগ্রাধিকারের শীর্ষে রয়েছে রাশিয়ার তেল–গ্যাসের বিকল্প কোনও উৎস খোঁজা। শুধু তাই নয়, চলতি শীতে সংকট মোকাবিলায় জ্বালানি সাশ্রয়েও কৌশলও অবলম্বন করছে ইউরোপের দেশগুলো।

ইতোমধ্যে সংকট মোকাবিলায় বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধের পরিকল্পনা থেকে সরে এসেছে জার্মানি। চেকোস্লোভাকিয়ায় সরকারি অফিসগুলোতে পুরোনো বাল্ব সরিয়ে বিদ্যুৎ–সাশ্রয়ী এলইডি বাল্ব ব্যবহার করা হচ্ছে। ইতালিতে ঘরের ভেতরের তাপমাত্রা ১৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি না রাখার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে বলা হয়েছে, কম তাপে খাবার রান্না করতে। ইউরোপের নামীদামি নানা ব্র্যান্ডের দোকানগুলোতে সময়ের আগেই বৈদ্যুতিক বাতি বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

রাশিয়ার ওপর নির্ভরশীলতা কমাতে চলতি নভেম্বরে ৮০ শতাংশ গ্যাস মজুত করার লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করেছিল ইউরোপের দেশগুলো। সেই লক্ষ্যও পূরণ হয়েছে। অনেক দেশ ৮০ শতাংশেরও বেশি গ্যাস মজুত করেছে। এরপরও সামনের কঠিন শীতের মাসগুলোতে ইউরোপ ইউক্রেনের পাশে থাকবে কি না, তা নিয়ে সংশয় রয়েছে।

কেননা, রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ঘোষণা দিয়ে বলেছেন, “আমাদের স্বার্থের বিরুদ্ধে গেলে আমরা কিছুই সরবরাহ করব না। গ্যাস, কয়লা, তেল—কিছুই না।” সুতরাং যুদ্ধে ইউক্রেনকে সহায়তা করে রাশিয়ার কাছ থেকে জ্বালানি সহায়তার আশা করা  অবাস্তব।

অন্যদিকে, ইউরোপের দেশগুলোর হাতে মজুত থাকার পরও তাদের রাশিয়া থেকে পাইপলাইনে করে আসা গ্যাসের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে বলে মনে করেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিরাপত্তাবিষয়ক বিশেষজ্ঞ রাফায়েল লস। আল–জাজিরাকে তিনি বলেন, যদি রাশিয়া থেকে গ্যাস সরবরাহে বাধা আসে, তাহলে ইউরোপের দেশগুলোর বাসাবাড়ি ও শিল্পকারখানায় এর প্রভাব পড়বে।

তাছাড়া উত্তর আমেরিকা, উপসাগরীয় দেশগুলো ও নরওয়ে থেকে আসা জ্বালানি রাশিয়ার জ্বালানির বিকল্প হিসেবে পুরোপুরি চাহিদা পূরণ করতে পারবে না। নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ রাফায়েল লস বলেন, এমন পরিস্থিতিতে পুতিন আশা করছেন, শীতের প্রকোপ থেকে বাঁচতে ইউক্রেনের বিপুল পরিমাণ বাসিন্দা আশপাশের দেশগুলোতে পাড়ি জমাবেন।

তিনি আরও বলেন, পুতিন যদি চলমান ‘জ্বালানিযুদ্ধ’ কাজে লাগিয়ে ইউরোপের দেশগুলোতে জনবিক্ষোভ শুরু করাতে পারেন; অভিবাসনসংকট জোরদার করতে পারেন এবং ভুয়া তথ্য ছড়ানোয় সফল হন, তাহলে এর প্রভাবে ইউক্রেনে ইউরোপের দেশগুলোর সহায়তার হার কমে যেতে পারে। আর পুতিন এটাই চাইছেন।

আর এক্ষেত্রে পুতিন সফল হলে ইউক্রেনের পাশ থেকে সরে দাঁড়াতে পারে ইউরোপের দেশগুলো। 


সূত্র: আল জাজিরা



আরও খবর



সিরাজগঞ্জে ধর্ষণ মামলার ২ পলাতক আসামী গ্রেফতার

প্রকাশিত:শুক্রবার ১১ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | ৭৪জন দেখেছেন
Image
সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জের তাড়াশ থেকে ধর্ষণ মামলার ২ পলাতক আসামীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটেলিয়ান র‍্যাব-১২'র একটি দল।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তাড়াশ উপজেলার ইশ্বরপুর গ্রামের রওশন ফকিরের বাড়ীর সামনে থেকে দুজনকে গ্রেফতার করা হয়। 
গ্রেফতারকৃতরা হলো শাহজাদপুরের নুকালী পূর্বপাড়া গ্রামের লতিফ সরকারের ছেলে ইয়াসিন সরকার ও একই এলাকার মৃত রমজান আলীর ছেলে শেরালী হোসেন। 
শুক্রবার (১১ নভেম্বর) দুপুরে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এতথ্য নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব-১২ স্কোয়াড কমান্ডার লেফটেন্যান্ট মোঃ আবুল হাসেম সবুজ।
প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে শাহজাদপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা রয়েছে। দায়ের করা মামলা হওয়ার পর থেকে তারা পলাতক ছিলেন। গ্রেফতারকৃতদের শাহজাদপুর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

আরও খবর



ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, আহত তিন

প্রকাশিত:রবিবার ১৩ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২৬ নভেম্বর ২০২২ | ১২১জন দেখেছেন
Image

জয়নুল আবেদীন,ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: ঠাকুরগাঁওয়ে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে দু’গ্রুপের সংঘর্ষে তিনজন আহত হয়েছেন। আহতদের ঠাকুরগাঁও জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে দর্শকদের অভিযোগ খেলার মাঠে দেশীয় অস্ত্র আসলো কিভাবে? 

রবিবার (১৩ নভেম্বর) সন্ধ্যায় ঠাকুরগাঁও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় বড় মাঠে এই ঘটনাটি ঘটেছে। তবে আহতদের পরিচয় এখনো পাওয়া যায়নি। 

জানা গেছে, আজ বিকেলে জেলা স্কুল বড় মাঠে আজাদ ক্লাব বনাম জাগ্রত যুব সংঘের খেলা অনুষ্ঠিত হয়। ৯০ মিনিটের খেলায় জাগ্রত যুব সংঘ দুই ও আজাদ ক্লাব এক গোল দেন। খেলার সময় শেষ হলে রেফারি আরো দুই মিনিট সময় বাড়িয়ে দেয়। দুই মিনিটের মধ্যে আজাদ ক্লাব আরো একটি গোল দেয় কিন্তু লাইসম্যান তা দেখতে না পেয়ে উত্তোজিত জনতা লাইসম্যানকে ঘিরে রাখে। এসময় উৎসুক জনতা মাঠে প্রবেস করে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হলেও গুরুতর অবস্থায় তিনজনকে স্থানীয়রা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করান। 

খেলা দেখতে আসা অনেকেই জানায়, খেলার মধ্যে হার-জিত থাকবেই তাই বলে মারামারি করতে হবে কেন? খেলার মধ্যে যে ভাবে দুই পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে মারামারি করলো তার মানে বুঝায় যাচ্ছে এটা পূর্ব পরিকল্পিত। যদি পূর্ব পরিকল্পিত না হয় তাহলে মুহুর্তের মধ্যে কিভাবে এতো দেশীয় অস্ত্র পেলো। তারা। খেলায় যদি নিরাপদ না দিতে পারে তাহলে খেলার আয়োজন কেন করা হয়। দ্রুত অপরাধীর আইনের আওয়াতায় এনে কঠোর শাস্তি দেওয়া কথা জানান দর্শকরা। 

ঠাকুরগাঁও সদর ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামাল হোসেন জানান, আজ বিকেলে শহরের জগ্রত যুব সংঘ ও আজাদ ক্লাব এর খেলা অনুষ্ঠিত হয়। খেলার এক পর্যায়ে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। 

খবর পেয়ে পুলিশ পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে। এখন পর্যন্ত কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলেই তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে


আরও খবর