Logo
আজঃ সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২
শিরোনাম

সুখবর দিলেন শবনম ফারিয়া

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৭৯জন দেখেছেন
Image

ছোট পর্দার প্রিয় মুখ শবনম ফারিয়া। ঈদ-পার্বণ-পূজাসহ যেকোনো উৎসবে তার নাটকের অপেক্ষায় থাকেন দর্শক। এবারের দুটি ঈদে দর্শক তাকে প্রচণ্ড মিস করেছে। তবে তার দর্শক-ভক্তদের জন্য সুখবর বয়ে আনলেন শবনম ফারিয়া।  

দীর্ঘ বিরতির পর কাজে ফিরেছেন তিনি। ‘দাফন’ শিরোনামের একটি ওয়েব সিরিজের কাজ শুরু করছেন এই সদুর্শনী।

এটি পরিচালনা করেছেন কৌশিক শংকর। সিরিজের একটি অংশের শুটিং সম্পন্ন হয়েছে কুষ্টিয়ার বিভিন্ন লোকেশনে। এখন রাজধানীর মিরপুরে চলছে কাজ। 

সিরিজটি নিয়ে দারুণ উচ্ছ্বসিত ফারিয়া।  ‘নিজের পড়াশোনা ও কিছুটা অসুস্থতার কারণে একটা গ্যাপ হয়ে গেলো। আবারও কাজে ফিরলাম। ঢাকায় শুটিং হচ্ছে। আশা করি দাফন দর্শকদের ভালো লাগবে।’ 

শবনম ফারিয়া ইনডিপেনডেন্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী। তিনি গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগে পড়ছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস ও পরীক্ষার কারণেও ব্যস্ত সময় কেটেছে তার।


আরও খবর

যৌনপল্লীতে নায়িকা নিপুণ আক্তার !

বৃহস্পতিবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২




মুখোমুখি ভারত-পাকিস্তান, ক্রিকেট মাঠে মহাযুদ্ধ আজ

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৯৬জন দেখেছেন
Image

এশিয়া কাপ টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের ১৫তম আসরের সবচেয়ে হাইভোল্টেজ ম্যাচে আজ রবিবার মুখোমুখি হচ্ছে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারত ও পাকিস্তান। এ দুই দেশের লড়াইটা বিশ্ব ক্রিকেটের সবচেয়ে মর্যাদাকর হিসেবেই পরিচিতি লাভ করেছে। এই মর্যাদার লড়াইয়ে জিততে মুখিয়ে থাকে দু’দলই। তাই প্রতিবারই ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ নিয়ে থাকে বাড়তি উন্মাদনা। এবারো এর ব্যতিক্রম নয়। টুর্নামেন্টে এ’ গ্রুপে দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আজ বাংলাদেশ সময় রাত ৮টায় মুখোমুখি হবে ভারত ও পাকিস্তান।

দুই দলের দ্বিপাক্ষিক সিরিজ বন্ধ হওয়ার পর ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের আবেদন যেন আরও বেড়েছে। বিশ্বকাপ, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি, এশিয়া কাপের মতো আসরে তাই ভারত ও পাকিস্তানের ম্যাচ মানেই গোটা ক্রিকেট বিশ্বে বাড়তি রোমাঞ্চ। দুই দলের এবারের লড়াই দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। এই ভেন্যুতে ব্যাটার ও বোলারদের ভারসাম্য থাকে প্রতিটি ম্যাচেই। বাউন্ডারি ছোট বলে ব্যাটাররা দ্রুত রান তোলার কথা ভাববেন, এটাই স্বাভাবিক। তবে ছেড়ে কথা বলবেন না বোলাররাও। নতুন বলে পেসাররা গতি ও বাউন্স দিয়ে নাভিশ্বাস তুলতে পারেন ব্যাটারদের। আবার স্পিনাররা মাঝখানের ওভারগুলোতে বিপজ্জনক হয়ে উঠতে পারেন যেকোনো দলের বিপক্ষে।

একাদশ সাজাতে তাই রোহিত শর্মা ও বাবর আজমের দলকে বেশ মুন্সিয়ানার পরিচয় দিতে হবে। সেক্ষেত্রে দলের সেরা খেলোয়াড়ের অনুপস্থিতি ভোগাবে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীকেই। চোটের কারণে ভারত এই ম্যাচে পাচ্ছে না পেসার জাসপ্রিত বুমরাহকে। একইভাবে পাকিস্তান পাচ্ছে না তাদের সেরা পেসার শাহীন শাহ আফ্রিদিকে। দুই মূল হাতিয়ার ছাড়া কেমন হতে পারে দুই দলের একাদশ, তা নিয়ে চলছে জল্পনাকল্পনা।

দুবাইয়ে ইতোমধ্যে মুহূর্তের অনুশীলন করেছেন ভারত ও পাকিস্তানের ক্রিকেটাররা। অনুশীলনের ফাঁকে পরস্পরের সঙ্গে করমর্দন করছেন দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দলের ক্রিকেটাররা। ইনজুরিতে শেষ মুহূর্তে এশিয়া কাপ থেকে সরে দাঁড়ান বাঁহাতি পেসার শাহীন আফ্রিদি। বাঁহাতি পেসার না থাকায় পাকিস্তানের পেস অ্যাটাকের শক্তি কমেছে কোনো সন্দেহ নেই। কিন্তু দলকে উৎসাহ দিতে দুবাইয়ে হাজির হয়েছেন তিনি। অনুশীলন শেষে আফ্রিদি করমর্দনে শুভকামনা জানিয়েছেন ভারতের সাবেক অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে। শুধু আফ্রিদি নন, পাকিস্তানে অধিনায়ক বাবর আজম, লেগ স্পিনার শাদাব খানরাও শুভকামনা জানিয়েছেন বিশ্বের অন্যতম সেরা ব্যাটারকে।

তবে ভারত-পাকিস্তান লড়াইকে শুধুমাত্র একটি ‘ম্যাচ’ বলেই মনে করেন দুই দলের বর্তমান ও সাবেক ক্রিকেটাররা। তাদের মতে, এটি অন্যান্য ম্যাচের মতই। তবে চাপ অনুভব করেন দলে থাকা ক্রিকেটাররা। বাড়তি চাপ থাকায়, মর্যাদার লড়াইয়ে জিততে মরিয়া ভারত ও পাকিস্তান। ভারতের অধিনায়ক রোহিত শর্মা বলেন, সকলেই এই ম্যাচের দিকে তাকিয়ে থাকে। খুব চাপের ম্যাচ এটি, তা নিয়ে কোন সন্দেহ নেই। তবে দলের পরিবেশ হালকা পরিবেশ রাখতে চাই। এই ম্যাচ নিয়ে খুব ভেবে নিজেদের চাপে ফেলতে চাই না। যারা কোনো দিন পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলেনি বা মাত্র একটি-দুটি ম্যাচে খেলেছে, তাদের ভালো করে এই ম্যাচের গুরুত্ব বোঝাতে চাই। আমরা পাকিস্তানকে অন্য যে কোনো সাধারণ বিপক্ষের মতোই দেখছি। তবে ম্যাচ জিতেই মাঠ ছাড়ার লক্ষ্য আমাদের।

রোহিতের সুরে কথা বলেন পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজমও। তিনি বলেন, অন্যান্য ম্যাচের মত হলেও, ভারত-পাকিস্তান ম্যাচে বাড়তি চাপ এমনতিতেই চলে আসে। এই চাপকে সামলেই লড়াই করতে হয় ক্রিকেটারদের। কারণ সকলেই জানে, এমন ম্যাচের গুরুত্ব কত বেশি। তাই জয়ের জন্য মুখিয়ে থাকে ক্রিকেটাররা। এবারো আমরা জয়ের জন্য মাঠে নামবো।

এদিকে, দুই ক্রিকেট পরাশক্তির টি-২০ ম্যাচ নিয়ে উন্মাদনার সৃষ্টি হয়েছে দুবাইসহ গোটা বিশ্বের ক্রিকেটপ্রেমীদের মধ্যে। এই ম্যাচ দিয়ে এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনের মিশন শুরু হবে রোহিত শর্মার ভারত ও বাবর আজমের পাকিস্তানের। দুবাইয়ে দুই দল সর্বশেষ টি-২০ ম্যাচ খেলেছিল গত অক্টোবরে। টি-২০ বিশ্বকাপের ওই ম্যাচে ভারতকে ১০ উইকেটের আকাশসমান ব্যবধানে হারিয়েছিল পাকিস্তান। সেই ম্যাচে শাহীন শাহ আফ্রিদির বিধ্বংসী বোলিংয়ে ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৫১ রান করেছিল ভারত। মোহাম্মদ রিজওয়ানের ৭৯ ও বাবরের ৬৩ রানে ভর করে পাকিস্তান ম্যাচটি জিতেছিল ১৩ বল হাতে রেখে। 

অবশ্য দুই দেশের পরিসংখ্যানের বিচারে এগিয়ে রোহিত শর্মার ভারত। ৯ ম্যাচের ৬টিতে জিতেছেন রোহিতরা এবং বাবরের পাকিস্তানের জয় ২টি। ২০০৭ সালে প্রথম টি-২০ বিশ্বকাপে দুই দল প্রথম খেলেছিল টি-২০ ম্যাচ। ‘টাই’ ম্যাচটি ‘বোল আউট’ পদ্ধতিতে জিতেছিল ভারত। এশিয়া কাপে দুই দল একবার খেলেছে পরস্পরের বিপক্ষে। ২০১৬ সালে মিরপুর স্টেডিয়ামে ম্যাচটি ভারত জিতেছিল ৫ উইকেটে।

অন্যদিকে, ভারত-পাকিস্তান ম্যাচকে আড়াল করে সব আলো কেড়ে নিয়েছেন কোহলি। ছন্দহীন ভারতীয় ড্যাসিং ক্রিকেটার যেন রানে ফিরেন ক্রিকেটপ্রেমীদের মতো পাকিস্তানের ক্রিকেটাররাও চাইছেন। আফ্রিদি করমর্দন শেষে বলেন, ‘আপনি আবার রানে ফিরুন। এটাই প্রার্থনা করছি।’ পাকিস্তানের লেগ স্পিনার শাদাব খান বলেন, ‘বিরাট কোহলি সেঞ্চুরি করুন। তবে নিশ্চিত করে সেটা আমাদের বিপক্ষে নয়। অন্য দলের বিপক্ষে।’ 

আদিকে, আজ পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ম্যাচে যদি আজ নামেন ভারতীয় সাবেক এই অধিনায়ক, তাহলে নতুন একটি মাইলফলক গড়বেন। অধিনায়ক রোহিতের পর দ্বিতীয় ভারতীয় ক্রিকেটার হিসেবে টি-২০ ক্রিকেটে ১০০ ম্যাচ খেলার মাইলফলক গড়বেন তিনি। ১৩২ ম্যাচের ১২৪ ইনিংসে রোহিতের রান ৪ সেঞ্চুরি ও ২৭ হাফসেঞ্চুরিতে ৩৪৮৭ রান। কোহলি ৯৯ ম্যাচের ৯১ ইনিংসে ৩০ হাফসেঞ্চুরিতে রান করেছেন ৩৩০৮।   

প্রসঙ্গত, আফগানিস্তান ও শ্রীলঙ্কা ম্যাচ দিয়ে শনিবার (২৭ আগস্ট) শুরু হয়েছে এশিয়া কাপ। অক্টোবর-নভেম্বর টি-২০ বিশ্বকাপকে সামনে রেখে এবারের এশিয়া কাপের খেলাগুলো হচ্ছে টি-২০ ফরম্যাটে। 


আরও খবর

এশিয়া কাপ শেষে দেশে ফিরলো টাইগাররা

শনিবার ০৩ সেপ্টেম্বর ২০২২




ঢাকার নবাবগঞ্জ হতে ৩১৬০ পিস ইয়াবা ও ১৩৫ গ্রাম হেরোইনসহ ০১ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৫১জন দেখেছেন
Image

গতকাল ১২ সেপ্টেম্বর ২০২২ র‌্যাব-১০ এর একটি আভিযানিক দল ঢাকা জেলার নবাবগঞ্জ থানাধীন দিঘীর পাড় এলাকায় একটি অভিযান পরিচালনা করে আনুমানিক ২২,৯৮,০০০ টাকা মূল্যের ৩,১৬০ পিস ইয়াবা ও ১৩৫ গ্রাম হেরোইনসহ ০১ জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত ব্যক্তির নাম মোহাম্মদ আজাদ (৪৯) বলে জানা যায়। এসময় তার নিকট থেকে ০১টি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, গ্রেফতারকৃত ব্যক্তি একজন পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী। সে বেশ কিছুদিন যাবৎ নবাবগঞ্জসহ ঢাকা শহরের বিভিন্ন এলাকায় ইয়াবা ও হেরোইনসহ অন্যান্য মাদকদ্রব্য সরবরাহ করে আসছিল বলে জানা যায়।

গ্রেফতারকৃত ব্যক্তির বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় মাদক মামলা রুজু করা হয়েছে।


আরও খবর



রুপকথার গল্প হতে চলছে পটুয়াখালীতে বাঁশের চাঁই দিয়ে মাছ শিকারের ফলে

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৭৬জন দেখেছেন
Image

পটুয়াখালী প্রতিনিধিঃ  পটুযাখালীতে বাঁশের চাঁই দিয়ে মাছ শিকারের ফলে দেশী প্রজাতির মাছ রুপকথার গল্পেরমত হতে চলছে। এতে বিভিন্ন প্রজাতির দেশী মাছের পোনা ও মাছ উৎপাদন কমে যাচ্ছে। গ্রাম-গঞ্চে বাঁশের তৈরী চাঁই জলাশয়ে পেতে মাছের বংশ নষ্ট করছে অসাধু জেলেরা। 

অন্যদিকে বিভিন্ন খালে ও ডোবায় অধিক হারে কীটনাষক ব্যবহারের কারনে মাছের বংশ বিস্তার করতে পারছেনা। এসব অবৈধ চাঁই প্রতিরোধ করতে না পারলে দেশীয় প্রজাতির মাছ উৎপাদন কমে যাবে। তবুও থেমে নেই  মাছ শিকারে অসাধু জেলেরা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, দশমিনা উপজেলায় বিভিন্ন হাট-বাজারে অবৈধ ভাবে বাঁশের তৈরী চাঁই বিক্রি করে থাকে স্থানীয় ও সুবিধাভোগী ব্যবসায়ীরা। বৈশাখ থেকে ভাদ্র মাসের শেষ পর্যন্ত উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের ধানীজমি ও খাল-বিল, ডোবা-নালাতে বাশেঁর চাঁই পেতে বিভিন্ন প্রজাতির পোনা মাছ ও মাছ শিকার করা হচ্ছে। সরকারি নিয়ম অনুযায়ী মাছ শিকারের জন্য ব্যবহারিত  নিয়ম কানুন না মেনে অবৈধ ভাবে চাই পেতে মাছ শিকাওে মেতে উঠেছে অসাধু জেলেরা। 

এসকল অসাধু জেলেরা দুইসুতাঁ পরিমান ফাঁকা রেখে বাশেঁর চাঁই তৈরী করে ব্যবহার  করছে। ফলে দেশীয় প্রজাতির মাছের বংশ নষ্ট করছে। আর দেশীয় মৎস্য প্রজনন কমে যাচ্ছে। অন্য দিকে এ অঞ্চলের মানুষের মাছের আকাল দিন দিন বেড়েই চলছে। এমতাবস্থায় বাঁশের চাঁই ব্যবহার দ্রুত বন্ধ না করলে ভবিষ্যত প্রজন্মের কাছে দেশীয় মাছের রুপকথার গল্পেরমত থেকে যাবে।

চাঁই দিয়ে মাছ শিকারকারী মো. ইউনিুছ খা বলেন, কিস্তি এনে আগে রাস্তায় গাড়ি চালাইতাম যাত্রী কম থাকায় বাধ্য হয়ে বাজার থেকে বাঁশের চাঁই কিনে এনেছি। ৬জনের সংসারের খরচ চালাতে এ পথে নামছি। না খেয়ে কয়দিন থাকতে পারি। খালে-বিলে ও ডোবায় পেতে মাছ শিকার করে বাজারে কিংবা মাছের আড়ৎতে বিক্রি করে কোন রকম সংসার চালাই। এ উপজেলায় এরকম কয়েক শ’ চাঁই দিয়ে মাছ শিকার করে সংসার চালায় ।

এ ব্যাপারে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ মাহাবুব আলম তালুকদার বলেন, বাশেঁর চাঁই দিয়ে মাছ শিকারের কারনে এ অঞ্চলের দেশী বিভিন্ন প্রজাতির মাছ উৎপাদন কমে যাচ্ছে। তবে এ বাঁশের চাই গুলো অপসারনের লক্ষে উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারে এবং খালগুলোতে অভিযান পরিচালনা করা হবে।


আরও খবর

বিষখালীর হঠাৎ ভাঙনে ছয় দোকান বিলীন

মঙ্গলবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২




ধারাবাশাইল উচ্চ বিদ্যালয়ে পুনরায় সভাপতি হলেন কাজী অমিত মাহমুদ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৫৩জন দেখেছেন
Image

কোটালিপাড়া (গোপালগঞ্জ) প্রতিনিধি: গোপালগঞ্জের কোটালিপাড়ার কান্দিইউনিয়নের ধারাবাশাইল উচ্চ বিদ্যালয় শোমবার ম্যানেজিং কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।পুনরায়  নির্বাচিত হয়েছেন কাজী অমিত মাহমুদ। 

অভিভাবক, শিক্ষক,,দাতা সদস্য মোট ৯ সদস্য বিশিষ্ট ম্যানেজিং কমিটি গঠন করা হয়েছে। কান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তুষার মুধু বলেন পরপর চার  বার  নির্বাচিত হওয়ার একটা  বড় কারণ তিনি সভাপতি হওয়ার পর  থেকে উচ্চ বিদ্যালয়ের অবকাঠামো পরিবর্তন হয়েছে।

লেখা পড়ার মান ভালো হয়েছে। ম্যানেজিং কমিটির শিক্ষক সদস্য সহকারী প্রধান শিক্ষক মনিন্দ্র নাথ রায় বলেন কাজী অমিত মাহমুদ আমাদের শিক্ষক, এবং ছাত্র ছাত্রী ও বিদ্যালয়ের দিক সার্ব খানিক খেয়াল রাখেন। কাজী অমিত মাহমুদ পুনরায় নির্বাচিত  হয়ে সকলের উদ্দেশ্যে বলেব আমার  চাওয়া লেখা পড়ার মান উন্নত করা বিদ্যালয় কে সরকারি করা,  শিক্ষার্থীদের সুশিক্ষায় শিক্ষিত করা।

আমার পুর্বপুরুষ থেকে শুরু করে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাথে জরিত। আমার বাবা কাজী মন্টু কলেজের প্রতিষ্ঠাতা,  চাচা শাহানা রশিদ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা।আমার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে আসি ও থাকব এই কথা বলে শুভেচ্ছা জানিয়ে বক্তব্য শেখ করেন।


আরও খবর



যেসব কারণে রক্ত ওঠানামা করে

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৯০জন দেখেছেন
Image

রক্ত উঠানামা একটি জটিল স্বাস্থ্যগত সমস্যা। কারো কারো ক্ষেত্রে রক্তচাপ খুব অস্বাভাবিক বেড়ে যায়, আবার কখনও রক্তচাপ অস্বাভাবিক কমে যায়। এমনটি কোনো কোনো সময় বিপজ্জনক।

রক্তচাপ উঠানামা করার কারণ ও প্রতিকার নিয়ে বিস্তারিত জানিয়েছেন মেডিনোভা হাসপাতালের কার্ডিওলজি বিভাগের অধ্যাপক ও বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. মো. তৌফিকুর রহমান 

রক্তচাপ কেন ওঠানামা করে, রক্তচাপ অনেক কারণে ওঠানামা করতে পারে। কিছু রোগীর কারণে, কিছু খাবারের কারণে, কিছু রক্তচাপ মাপার মেশিনের কারণে, কিছু রক্তচাপ মাপার পদ্ধতিগত সমস্যার কারণে ও পরিবেশগত কারণে রক্তচাপ ওঠানামা করতে পারে।

রোগীর কী কী কারণে রক্তচাপ ওঠানামা করে

রোগী দুশ্চিন্তা করলে রক্তচাপ হঠাৎ খুব বেড়ে যেতে পারে আবার দুশ্চিন্তা কমে গেলে বা নিয়ন্ত্রণে এলে রক্তচাপ স্বাভাবিক হতে পারে। যদিও প্রাথমিকভাবে এই বাড়তি রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণের জন্য সাময়িকভাবে কিছু উচ্চ রক্তচাপের ওষুধ ও দুশ্চিন্তা নিয়ন্ত্রণের ওষুধ লাগতে পারে, পরবর্তীকালে সাধারণত উচ্চ রক্তচাপের ওষুধের আর প্রয়োজন নাও হতে পারে। কোনো কোনো ক্ষেত্রে দুশ্চিন্তা বেশি করলে রক্তচাপ স্বাভাবিকের চেয়ে কমেও যেতে পারে। রোগী যদি দীর্ঘদিন ধরে শরীরের ব্যথা কমানোর ওষুধ বিশেষ করে এনএসএআইডি জাতীয় ওষুধ সেবন করে রোগীর রক্তচাপ বাড়তে পারে বা ওঠানামাও করতে পারে। রোগী যদি নিয়মিত ওষুধ না খায় বা মাঝেমাঝে ওষুধ বাদ দেয় তবে রক্তচাপ ওঠানামা করতে পারে। রোগী যদি দীর্ঘদিন জন্মনিয়ন্ত্রণের ওষুধ খান তবে রক্তচাপ বাড়তে পারে বা ওঠানামা করতে পারে। রোগীর যদি কিডনিতে সমস্যা থাকে তাহলেও রক্তচাপ ওঠানামা করতে পারে। রোগীর যদি কিছু হরমোনজনিত রোগ যেমন হাইপারথাইরয়েডিজম (থাইরয়েড গ্লান্ড থেকে বেশি বেশি থাইরয়েড হরমোন বের হওয়া রোগ) বা ফিওক্রোমোসাইটোমা (কিডনির উপরে অবস্থিত এড্রেনাল গ্লান্ডের টিউমার রোগ) জাতীয় রোগ হয় তবে রক্তচাপ ওঠানামা করতে পারে।

কী কী খাবারের কারণে রক্তচাপ ওঠানামা করে? অতিরিক্ত কফি পান, চা পান ও ধূমপান করলে রক্তচাপ বাড়তে পারে। রক্তচাপ মাপার মেশিনের তারতম্যের কারণে কি রক্তচাপ ওঠানামা করতে পারে হ্যাঁ, বিভিন্ন প্রকারের রক্তচাপ মাপার মেশিন বিভিন্ন সময়ে ব্যবহারের কারণে রক্তচাপের মান ভিন্ন ভিন্ন হতে পারে। আবার দেখা যায় অটোমেটিক মেশিনে রক্তচাপ মাপার কয়েক মিনিট পরে আবার রক্তচাপ মাপলে আগের মাপের থেকে ভিন্নতা পাওয়া যায়।

রক্তচাপ মাপার কী পদ্ধতিগত সমস্যার কারণে ও পরিবেশগত কী কী কারণে রক্তচাপ ওঠানামা করে

রক্তচাপ মাপার মেশিনের সঠিক সাইজ ব্যবহার না করলে, রক্তচাপ মাপার সময় কথা বললে, অনেক পরিশ্রম বা ব্যায়ামের পর রক্তচাপ মাপলে বা হোয়াইট কোট হাইপারটেনশনের কারণে রক্তচাপের মান বেশি আসতে পারে।

হোয়াইট কোট হাইপারটেনশন কী? অনেক রোগী চিকিৎসকের চেম্বারে আসার পর অতিরিক্ত ও অপ্রয়োজনীয় টেনশন বা দুশ্চিন্তায় ভোগেন, ফলে রক্তচাপ অনেক বেড়ে যায়, কিন্তু এসব রোগীর বাসায় বা অন্য সময় রক্তচাপ স্বাভাবিক বা কম থাকে, যেহেতু ডাক্তাররা সাদা এপ্রোন বা কোট পরিধান করে তাই এ সমস্যাকে হোয়াইট কোট হাইপারটেনশন বলে।


সুত্র:  যুগান্তর


আরও খবর

মুখে ব্রণের দাগ দূর করতে

শনিবার ২৩ জুলাই ২০২২