Logo
আজঃ রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২
শিরোনাম
টুঙ্গিপাড়া ও কোটালীপাড়া

উপজেলা আওয়ামী লীগের ব্যবস্থ্যাপনায় নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:রবিবার ২০ নভেম্বর ২০22 | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | ৫৬জন দেখেছেন
Image

মহাসিন শেখ,টুংগিপাড়া প্রতিনিধিঃ এমপি শেখ সারহান নাসের তন্ময়ের উদ্যোগে টুঙ্গিপাড়া ও কোটালীপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের ব্যবস্থ্যাপনায় অনুষ্ঠিত নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতায় প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলির সদস্য কাজী আকরাম উদ্দিন আহমদ। 

এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন শেখ হেলাল উদ্দীন এমপি, শেখ সালাহউদ্দিন জুয়েল এমপি, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এস.এম কামাল হোসেন, জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দও উপস্থিত ছিলেন।

নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতায় সভাপতিত্ব করেন টুঙ্গিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ আবুল বাসার খায়ের। প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ীদের মধ্যে পুরষ্কার বিতরণ করেন অতিথিগন।



আরও খবর



বাবার পর ভারতে ছেলেও প্রধান বিচারপতি, শপথ নিলেন ধনঞ্জয় চন্দ্রচূড়

প্রকাশিত:বুধবার ০৯ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | ৮৩জন দেখেছেন
Image

ভারতের ৫০তম প্রধান বিচারপতি হিসেবে শপথগ্রহণ করেছেন বিচারপতি ধনঞ্জয় যশবন্ত চন্দ্রচূড়। বুধবার রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মু চন্দ্রচূড়কে শপথবাক্য পাঠ করান। মঙ্গলবারই সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির পদ থেকে অবসর গ্রহণ করেছেন উদয় উমেশ ললিত। শপথ নেওয়ার পরেই চন্দ্রচূড় বলেছেন, “আমার কাজ কথা বলবে”।

১১ অক্টোবর কেন্দ্রীয় সরকারকে চিঠি লিখে বিচারপতি ললিত তার উত্তরসূরি হিসেবে চন্দ্রচূড়ের নাম প্রস্তাব করেছিলেন। কেন্দ্রীয় আইন মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে চন্দ্রচূড়ের নাম রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠানো হলে তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে সম্মতি জানান। 

চন্দ্রচড়ের বাবা যশবন্ত বিষ্ণু (ওয়াই ভি) চন্দ্রচূড় আট বছর (১৯৭৮-১৯৮৫) ভারতের প্রধান বিচারপতি ছিলেন। এত দীর্ঘ সময় ধরে ভারতে কেউ প্রধান বিচারপতি পদে থাকেননি। পিতা এবং পুত্র দু’জনেই ভারতের প্রধান বিচারপতি হচ্ছেন, এমন নজিরও আগে দেখা যায়নি। ২০১৬ সালে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি হিসেবে কাজ শুরু করা চন্দ্রচূড় প্রধান বিচারপতির পদে ২০২৪ সালের ১০ নভেম্বর পর্যন্ত থাকবেন। 

সূত্র : আনন্দবাজার


আরও খবর



ইউক্রেনের পাশ থেকে কি সরে যাবে ইউরোপ?

প্রকাশিত:সোমবার ০৭ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | ৮৬জন দেখেছেন
Image

দীর্ঘ আট মাস পেরিয়ে গেছে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ। এরই এই যুদ্ধে মধ্যে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে ইউক্রেন। হাতছাড়া হয়েছে লুহানস্ক, ডোনেটস্ক, খেরসন ও জাপোরিঝঝিয়ার মতো গুরুত্বপূর্ণ চারটি অঞ্চল। যদিও এগুলো পুনরুদ্ধারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে, তবে এসব ভূখণ্ড রুশ ভূমির সঙ্গে রাখার তীব্র প্রচেষ্টা চালাচ্ছে রাশিয়া। ইতোমধ্যে খেরসনে বিপজ্জনক অভিযানের ঘোষণা দিয়েছে রুশ কর্তৃপক্ষ। এ লক্ষ্যে সেখান থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে বেসামরিক লোকজনকে।

এদিকে, দীর্ঘ এই যুদ্ধে ইউক্রেনকে পাশে থেকে সহায়তা করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ ইউরোপী ইউনিয়নের দেশগুলো। যুদ্ধে সহায়তা করতে গিয়ে অর্থনৈতিক টালমাটাল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে ইউরোপজুড়ে। বেসামাল হয়ে পড়েছে মূল্যস্ফীতি। এমতাবস্থায় ইউক্রেনের পাশ থেকে ইউরোপের সরে যাওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে।

ইউরোপে শুরু হয়েছে শীতকাল। যুদ্ধের কারণে ওই অঞ্চলে দেখা দিয়েছে জ্বালানিসংকট। হু হু করে বাড়ছে জিনিসপত্রের দাম। ফলে মূল্যস্ফীতি চরমে পৌঁছেছে। যুদ্ধ আরও দীর্ঘায়িত হলে এই সংকট আরও ভয়াবহ রূপ নেবে। তখন অর্থনৈতিক পরিস্থিতি আরও বেসামাল হয়ে পড়বে। এমতাবস্থায় ইউক্রেনকে সহায়তা দেওয়া বন্ধ করতে পারে ইউরোপ- এমন আশঙ্কা করা হচ্ছে।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল–জাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইউরোপ অনেকটাই রাশিয়ার জ্বালানিসম্পদের ওপর নির্ভরশীল। ফলে ইউক্রেন যুদ্ধ শুরুর পর রাশিয়ার ওপর বিপুল নিষেধাজ্ঞা জারি সত্ত্বেও দেশটিকে দমন করা যায়নি। আর ইউরোপের এই জ্বালানি নির্ভরতার কারণেই ইউরোপের যেসব দেশ ইউক্রেনের পাশে দাঁড়িয়েছে, দেশগুলোকে ধরাশায়ী করতে জ্বালানিকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করছে মস্কো।

যদিও ইউরোপের ওই দেশগুলোও বসে নেই। রাশিয়া থেকে প্রাকৃতিক গ্যাস আমদানি বন্ধ করতে নানা উদ্যোগ নিয়েছে তারা। এখন তাদের অগ্রাধিকারের শীর্ষে রয়েছে রাশিয়ার তেল–গ্যাসের বিকল্প কোনও উৎস খোঁজা। শুধু তাই নয়, চলতি শীতে সংকট মোকাবিলায় জ্বালানি সাশ্রয়েও কৌশলও অবলম্বন করছে ইউরোপের দেশগুলো।

ইতোমধ্যে সংকট মোকাবিলায় বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধের পরিকল্পনা থেকে সরে এসেছে জার্মানি। চেকোস্লোভাকিয়ায় সরকারি অফিসগুলোতে পুরোনো বাল্ব সরিয়ে বিদ্যুৎ–সাশ্রয়ী এলইডি বাল্ব ব্যবহার করা হচ্ছে। ইতালিতে ঘরের ভেতরের তাপমাত্রা ১৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি না রাখার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে বলা হয়েছে, কম তাপে খাবার রান্না করতে। ইউরোপের নামীদামি নানা ব্র্যান্ডের দোকানগুলোতে সময়ের আগেই বৈদ্যুতিক বাতি বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

রাশিয়ার ওপর নির্ভরশীলতা কমাতে চলতি নভেম্বরে ৮০ শতাংশ গ্যাস মজুত করার লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করেছিল ইউরোপের দেশগুলো। সেই লক্ষ্যও পূরণ হয়েছে। অনেক দেশ ৮০ শতাংশেরও বেশি গ্যাস মজুত করেছে। এরপরও সামনের কঠিন শীতের মাসগুলোতে ইউরোপ ইউক্রেনের পাশে থাকবে কি না, তা নিয়ে সংশয় রয়েছে।

কেননা, রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ঘোষণা দিয়ে বলেছেন, “আমাদের স্বার্থের বিরুদ্ধে গেলে আমরা কিছুই সরবরাহ করব না। গ্যাস, কয়লা, তেল—কিছুই না।” সুতরাং যুদ্ধে ইউক্রেনকে সহায়তা করে রাশিয়ার কাছ থেকে জ্বালানি সহায়তার আশা করা  অবাস্তব।

অন্যদিকে, ইউরোপের দেশগুলোর হাতে মজুত থাকার পরও তাদের রাশিয়া থেকে পাইপলাইনে করে আসা গ্যাসের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে বলে মনে করেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিরাপত্তাবিষয়ক বিশেষজ্ঞ রাফায়েল লস। আল–জাজিরাকে তিনি বলেন, যদি রাশিয়া থেকে গ্যাস সরবরাহে বাধা আসে, তাহলে ইউরোপের দেশগুলোর বাসাবাড়ি ও শিল্পকারখানায় এর প্রভাব পড়বে।

তাছাড়া উত্তর আমেরিকা, উপসাগরীয় দেশগুলো ও নরওয়ে থেকে আসা জ্বালানি রাশিয়ার জ্বালানির বিকল্প হিসেবে পুরোপুরি চাহিদা পূরণ করতে পারবে না। নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ রাফায়েল লস বলেন, এমন পরিস্থিতিতে পুতিন আশা করছেন, শীতের প্রকোপ থেকে বাঁচতে ইউক্রেনের বিপুল পরিমাণ বাসিন্দা আশপাশের দেশগুলোতে পাড়ি জমাবেন।

তিনি আরও বলেন, পুতিন যদি চলমান ‘জ্বালানিযুদ্ধ’ কাজে লাগিয়ে ইউরোপের দেশগুলোতে জনবিক্ষোভ শুরু করাতে পারেন; অভিবাসনসংকট জোরদার করতে পারেন এবং ভুয়া তথ্য ছড়ানোয় সফল হন, তাহলে এর প্রভাবে ইউক্রেনে ইউরোপের দেশগুলোর সহায়তার হার কমে যেতে পারে। আর পুতিন এটাই চাইছেন।

আর এক্ষেত্রে পুতিন সফল হলে ইউক্রেনের পাশ থেকে সরে দাঁড়াতে পারে ইউরোপের দেশগুলো। 


সূত্র: আল জাজিরা



আরও খবর



অসামান্য সেবা পদকে ভুষিত হলেন পায়রা বন্দরের চেয়ারম্যান

প্রকাশিত:বুধবার ২৩ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | ৩২জন দেখেছেন
Image

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি: দেশের তৃতীয় বৃহত্তর গভীর সমুদ্র পায়রা বন্দরের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মাদ সোহায়েল অসামান্য সেবা পদকে ভ‚ষিত হলেন।

নৌবাহিনীতে চাকরিরত অবস্থায় নৌবাহিনী ও দেশের উন্নতিকল্পে প্রশংসনীয় অবদান ও দক্ষ ব্যবস্থাপনার জন্য গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক ২০২১ সালের জন্য তাকে এ অসামান্য সেবা পদকে ভ‚ষিত করা হয়েছে। ২১ নভেম্বর সোমবার দুপুর সাড়ে বারোটার দিকে সশস্ত্র বাহিনী দিবস-২০২২ উপলক্ষে নৌসদর “সাগরিকা” হল রুমে এ পদক দেয়া হয়।

বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে মনোনীত প্রতিনিধি হিসেবে নৌবাহিনী প্রধান তাকে এ পদক পরিধান করিয়ে দেন। এসময় নৌবাহিনী প্রধানের সাথে আরো উপস্থিত ছিলেন রিয়ার এডমিরল মোহাম্মদ মোজ্জাম্মেল হক, সহকারী প্রধান (পার্সোনাল) রিয়াল এডমিরল খন্দকার মিসবা-উল-আজিম, কমান্ডার ঢাকা নৌ-অঞ্চল এবং অন্যান্য উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাগন।

জানা যায়, রিয়াল এডমিরল মোহাম্মদ সোহায়েল ইতিপূর্বে সরকারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে কৃতিত্বের সাথে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তিনি বঙ্গবন্ধু সামরিক জাদুঘর নির্মাণ কাজের প্রকল্প পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। এসময় বাংলাদেশের নৌশক্তির অতীত ইতিহাসের নিপুণ গবেষণার মাধ্যমে বাংলাদেশ নৌশক্তির পাঁচ হাজার বছরের গৌরবময় ইতিহাস অত্যন্ত সুনিপণভাবে জাদুঘরে তুলে ধরেন। তিনি মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন মুক্তিযুদ্ধের গৌরবময় ইতিহাস, ঐতিহ্য, সাফল্য সংক্রান্ত নিদর্শন জাদুঘরে তুলে ধরেন। তিনি মেরিটাইম বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের অসাধারণ হলোগ্রাফী তৈরী করে দেশে-বিদেশে আলোড়ন সৃষ্টি করেন।

এছাড়াও অসামান্য সেবা পদক প্রাপ্ত রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মাদ সোহায়েল নৌবাহিনীর অপারেশন ও বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজে অসামান্য অবদান রেখেছেন। তিনি সাবমেরিন সংরক্ষন এবং বাংলাদেশ নৌবাহিনীর সার্বিক উন্নতি ও নিরাপত্তা বিধানে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন।

তিনি নেভাল স্কুল অব ইন্টেলিজেন্স প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি নৌবাহিনীর আধুনিকায়ন ও উন্নয়নে অনবদ্য ভ‚মিকা পালন করেন। এসকল কারণে বাংলাদেশ সরকার তাকে এ পদকে ভ‚ষিত করেন। বর্তমানে তিনি পায়রা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।






আরও খবর



১৮ নভেম্বর ঢাকায় আসছেন নোরা ফাতেহি, মিলেছে অনুমতি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৮ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | ৯২জন দেখেছেন
Image

সব জল্পনা-কল্পনা কাটিয়ে এবার ঢাকায় আসার অনুমতি পেলেন বলিউড ‘হার্টথ্রোব’ তারকা নোরা ফাতেহি। তাকে বাংলাদেশে আসা ও থাকার অনুমতি দিয়েছে মন্ত্রণালয়। 

সোমবার সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মোহাম্মদ খালেদ হোসেন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিষয়টি উইমেন লিডারশিপ করপোরেশনের প্রতিষ্ঠাতা মারিয়া মৃত্তিক স্বর্ণা নিশ্চিত করেন। তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘বলিউড অভিনেত্রী নোরা ফাতেহির বাংলাদেশে আসা নিয়ে অনেক জলঘোলা পরিবেশের সৃষ্টি হলেও অবশেষে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত পাওয়া গেছে।’

নোরা ফাতেহির বাংলাদেশ সফরে আর কোনো আইনি জটিলতা নেই। ১৮ নভেম্বর বাংলাদেশে আসছেন বলে তিনি নিশ্চিত করেছেন।

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় থেকে অনুমতির একটি চিঠি ইস্যু করা হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে— উইমেন লিডারশিপ করপোরেশনের উদ্যোগে ‘উইমেন এমপাওয়ারমেন্ট ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক ডকুমেন্টারির শুটিংয়ে অংশগ্রহণের নিমিত্তে ভারতীয় অভিনেত্রী মিস নোরা ফাতেহিকে শর্তসাপেক্ষে বাংলাদেশে আসার অনুমতি দেওয়া হলো।

এর পর পাঁচটি শর্ত দেওয়া হয়। তার একটিতে বলা হয়েছে— নোরা ফাতেহিকে আগামী ১৮ নভেম্বর একদিন (যাতায়াত সময় ব্যতীত) বাংলাদেশে অবস্থান করে প্রামাণ্যচিত্র শুটিংয়ে অংশগ্রহণ করতে হবে। এর বাইরে এই সময়ে তিনি অন্য কোনো কাজে বা অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে পারবেন না।

এর আগে একই প্রতিষ্ঠানের ‘গ্লোবাল অ্যাচিভারস অ্যাওয়ার্ড-২০২২’-এ অংশ নিতে ঢাকায় আসার কথা ছিল ভারতীয় এ অভিনেত্রী ও নৃত্যশিল্পীর। কিন্তু সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় তখন তাকে আসার অনুমতি দেয়নি।


আরও খবর



রাজধানীতে বাসে উঠতে গিয়ে একজনের মৃত্যু

প্রকাশিত:বুধবার ০৯ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | ৮৭জন দেখেছেন
Image

রাজধানীর দারুস সালাম থানার গাবতলী এলাকায় বাসে উঠতে গিয়ে একলাছুর রহমান (৪৬) নামে এক টিকিট কাউন্টার মাস্টারের মৃত্যু হয়েছে। তিনি মতিন পরিবহনের টিকিট কাউন্টার মাস্টার ছিলেন। বিকেলে ওই বাসে উঠার সময় তিনি পড়ে মাথায় আঘাত পান।

বুধবার (৯ নভেম্বর) বিকেলে এই ঘটনা ঘটে। একলাছুর রহমানকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে মৃত ঘোষণা করেন। 

ঢামেক হাসপাতালে পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া বলেন, মরদেহটি হাসপাতালের জরুরি বিভাগের মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি আমরা দারুস সালাম থানাকে জানিয়েছি।


আরও খবর