Logo
আজঃ শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪
শিরোনাম

এসএসসির ব্যবহারিক পরীক্ষা নিয়ে বোর্ডের জরুরি নির্দেশনা

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ অক্টোবর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ | ৪১৪জন দেখেছেন

Image

চলতি বছরের এসএসসির লিখিত পরীক্ষা শেষ হয়েছে। আগামী সোমবার (১০ অক্টোবর) থেকে চলতি বছরের এসএসসির ব্যবহারিক পরীক্ষা শুরু হবে। ব্যবহারিক পরীক্ষা নেওয়ার জন্য পরীক্ষকদের প্রতি জরুরি নির্দেশনা জারি করেছে ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড। এসএসসির ব্যবহারিক পরীক্ষা নেওয়ার নির্দেশনা তুলে ধরা হলো-

পদার্থ: ২৫ নম্বরের ব্যবহারিক পরীক্ষা নেয়া হবে। পরীক্ষার্থীদের প্রশ্নে উল্লেখিত যেকোনো একটি পরীক্ষণ সম্পন্ন করতে হবে। শিক্ষকদের উপস্থিতিতে লটারির মাধ্যমে পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষণ বণ্টন করা হবে। একজন পরীক্ষার্থী সর্বোচ্চ দুইবার লটারির সুযোগ পাবেন। পরীক্ষায় তত্ত্বে ৩ নম্বর, তথ্য সংগ্রহ, ছক ও চিত্রে ৬ নম্বর, হিসাবে ৩ নম্বর, ফলাফলে ১ নম্বর, সতর্কতায় ২ নম্বর থাকবে। আর ব্যবহারিক নোট বুকে ৫ নম্বর থাকবে।  কাজে পরিচ্ছন্নতা ও শিক্ষকের নিয়মিত স্বাক্ষরের ভিত্তিতে ব্যবহারিক নোট বুকে শিক্ষার্থীদের নম্বর দেয়া হবে। মৌখিক পরীক্ষার নম্বর হবে ৫। এতে পরীক্ষকরা পরীক্ষার্থীর পরীক্ষণের ওপর জ্ঞান যাচাইয়ে প্রাধান্য দেবেন। তবে, পাঠ্যসূচির অন্তর্ভুক্ত যেকোনো প্রশ্ন করা যাবে। 

জীববিজ্ঞান: জীববিজ্ঞান বিষয়ের ব্যবহারিক পরীক্ষায় পূর্ণমান হবে ২৫ নম্বর। এতে পরীক্ষণের নামে ১ নম্বর, উপকরণ ও যন্ত্রপাতির নামে ১ নম্বর, কার্যপদ্ধতি ও প্রদর্শনে ৩ নম্বর, চিত্রাঙ্কনে ৩ নম্বর, চিত্রচিহ্নিত করায় ২ নম্বর, পর্যবেক্ষণে ২ নম্বর, সিদ্ধান্তে ২ নম্বর এবং সতর্কতায় ১ নম্বর থাকবে। এছাড়া উপস্থাপনকৃত পরীক্ষণটির ফল ব্যাখ্যায় ৪ নম্বর, মৌখিক পরীক্ষা ৪ নম্বর এবং ব্যবহারিক খাতা ও শিটে ২ নম্বর থাকবে। রসায়ন: এই বিষয়ের ব্যবহারিক পরীক্ষা হবে ২৫ নম্বরে। পরীক্ষার্থীদের প্রশ্নে উল্লেখিত যেকোনো একটি পরীক্ষণ সম্পন্ন করতে হবে। শিক্ষকদের উপস্থিতিতে লটারির মাধ্যমে পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষণ বণ্টন করা হবে। একজন পরীক্ষার্থী সর্বোচ্চ দুইবার লটারির সুযোগ পাবেন। 

এতে প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি ও রাসায়নিত দ্রব্যাদিন নাম ও তত্ত্বে ৩ নম্বর থাকবে। যন্ত্রপাতি সাজানো, যথাযথ ব্যবহার ও কার্যপ্রণালীর জন্য ৪ নম্বর, ধর্ম পরীক্ষা ও ফল লিখনে ৬ নম্বর এবং পরীক্ষার পরিচ্ছন্নতা ও সতর্কতায় ২ নম্বর থাকবে। ব্যবহারিক নোট বুকে কাজের পরিমাপ ও পরিচ্ছন্নতা ও শিক্ষকের নিয়মিত স্বাক্ষরের ওপর ভিত্তিতে নম্বর দেয়া হবে। নোটবুকে নম্বর হবে ৫। আর মৌখিক পরীক্ষা হবে ৫ নম্বরে। মৌখিক পরীক্ষার পরীক্ষকরা পরীক্ষণের ওপর জ্ঞান যাচাইয়ে প্রাধান্য দেবেন। তবে পাঠ্যসূচির অন্তর্গত যেকোনো প্রশ্ন জিজ্ঞেস করা যাবে।   

উচ্চতর গণিত: উচ্চতর গণিতের ব্যবহারিক পরীক্ষা নিয়ে পরীক্ষকদের পাঠানো নির্দেশনায় বলা হয়েছে, লটারির মাধ্যমে পরীক্ষার্থীদের মধ্যে পরীক্ষণ বণ্টন করতে হবে। প্রত্যেক পরীক্ষার্থীকে দুইটি পরীক্ষণ করতে হবে। প্রত্যেক পরীক্ষার্থী পরীক্ষণের জন্য সর্বাধিক দুইবার লটারির সুযোগ পাবেন।

উচ্চতর গণিত পরীক্ষায় পরিকল্পনা প্রণয়নে নম্বর হবে ২, সঠিক প্রক্রিয়া অনুসরণে ৩ নম্বর, লেখাচিত্র অঙ্কন ও উপাত্ত বিশ্লেষণে ৩ নম্বর, ব্যাখ্যাসহ ফল উপস্থাপনে ২ নম্বর থাকবে। আর মৌখিত অভিক্ষায় মৌখিক প্রশ্ন পাঠ্যসূচির মধ্যে হবে। পরীক্ষণের ওপর ও প্রশ্ন করা যাবে। 

চারু ও কারুকলা: চারু ও কারুকলায় ব্যবহারিক পরীক্ষায় পরীক্ষার্থী দৃশ্য ও নকশা অঙ্কনের জন্য রং (জল রং ছাড়া) জ্যামিতি বক্স, স্কেল, পেন্সিল, ইরেজার ইত্যাতি নিজে নিয়ে আসবে। হল কর্তৃপক্ষ ব্যবহারিক উত্তরপত্র সরবরাহ করবেন। পরীক্ষার্থীরা ওই ব্যবহারিক উত্তরপত্রে দৃশ্য ও নকশা অঙ্কন করবে। 

সংগীত: সংগীত বিষয়ের ব্যবহারিক পরীক্ষায় পরীক্ষকরা প্রশ্নপত্র অনুযায়ী পরীক্ষা গ্রহণ করবেন। পরীক্ষার্থীর গায়নরীতি, সুর, তাল, লয়, উচ্চারণ ও বাণীর প্রতি লক্ষ্য রেখে নম্বর দেবেন। 

কৃষি শিক্ষা: কৃষি শিক্ষার ব্যবহারিক পরীক্ষায় পূর্ণমান হবে ২৫। পরীক্ষার্থীদের যেকোনো একটি পরীক্ষণ করতে হবে। এতে ১৫ নম্বর থাকবে। আর ব্যবহারিক খাতায় ৫ নম্বর ও মৌখিক পরীক্ষায় ৫ নম্বর থাকবে।  

গার্হস্থ্য বিজ্ঞান: ব্যবহারিক পরীক্ষায় প্রয়োজনীয় উপকরণ কলম, পেন্সিল, স্কেল, রাবার, বোর্ড, পেপার ও আলপিন আনতে হবে। আর প্রয়োজনীয় উপকরণ হিসেবে আরও লাগবে ডিম, দুধ, চিনি, ভ্যানিলা এসেন্স। 


আরও খবর

চবি ছাত্রলীগে ফের উত্তেজনা

সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




১০ দেশের রাষ্ট্রদূতকে দেশে ফেরার নির্দেশ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ | ১২জন দেখেছেন

Image

বিদেশে থাকা ১০ রাষ্ট্রদূতকে পৃথক বদলির আদেশ জারি করেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। অবসরে যাওয়া বা চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ায় তাদের দেশে ফিরতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

পৃথকভাবে রাষ্ট্রদূতদের কাছে পাঠানো পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আদেশে বলা হয়, আপনাকে সদর দপ্তর, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, ঢাকায় স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় রাষ্ট্রদূতদের তাদের বর্তমান দায়িত্বভার অবিলম্বে ছেড়ে ঢাকায় ফিরে আসার অনুরোধ জানিয়েছে।

যেসব দেশের দূতদের বদলির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে- জার্মানিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া, কানাডায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার খলিলুর রহমান, ইতালিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মনিরুল ইসলাম, পোল্যান্ডে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সুলতানা লায়লা হোসেন, কুয়েতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল মো. আশিকুজ্জামান, জেনেভাস্থ জাতিসংঘ কার্যালয়সহ অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংস্থায় নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মোহাম্মদ সুফিউর রহমান, জাপানে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শাহাবুদ্দিন আহমদ, থাইল্যান্ডে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ আবদুল হাই, গ্রিসে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আসুদ আহমেদ ও ইরাকে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত ফজলুল বারী।


আরও খবর

সংরক্ষিত নারী আসনের এমপিদের শপথ বিকালে

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

ঢাকা আইনজীবী সমিতির ভোটগ্রহণ চলছে

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




জন্মদিনে স্বামীকে যে বার্তা দিলেন ঐশ্বরিয়া

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ | ১৩২জন দেখেছেন

Image

কয়েক মাস ধরেই শোনা যাচ্ছিল ভাঙন ধরেছে অভিষেক বচ্চন ও ঐশ্বরিয়ার সংসারে। ইতিমধ্যে মেয়েকে নিয়ে নাকি স্বামীর বাড়ি ছেড়েছেন ঐশ্বরিয়া। মেয়ে আরাধ্যা বচ্চন ও মা বৃন্দা রাইকে নিয়ে অন্যত্র থাকেন তিনি। এমন খবরও চাউর হয়, শ্বশুর অমিতাভ বচ্চনও তাঁর ছেলের বউয়ের ইনস্টাগ্রাম আইডি আনফলো করে দিয়েছেন।

তবে বিচ্ছেদের জল্পনা অব্যাহত থাকলেও এখনো পর্যন্ত এ প্রসঙ্গে কোনো মন্তব্য করেননি পরিবারের কেউই। চুপ রয়েছেন ঐশ্বরিয়াও। তবে গতকাল ছিলো অভিষেক বচ্চনের জন্মদিন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকেই শুভেচ্ছা জানিয়েছেন অভিনেতাকে।

কিন্তু সারাদিন নীরব ছিলেন ঐশ্বরিয়া। এতে আরো জোরালো হয় তাদের সংসার ভাঙার গুঞ্জন। তবে এদিন সন্ধ্যায় স্বামীর জন্য ‘শান্তি’ কামনা করেন এই অভিনেত্রী। ঐশ্বরিয়া তার ইনস্টাগ্রামে একটি ছবি পোস্ট করেন।

তাতে মেয়ে আরাধ্য ও অভিষেকের সঙ্গে ফ্রেমবন্দি হয়েছেন ঐশ্বরিয়া। এ ছবির ক্যাপশনে তিনি লেখেন, ‘তোমাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা। সৃষ্টিকর্তা তোমাকে সুখ, ভালোবাসা, শান্তি ও সুস্বাস্থ্য দান করুক। উজ্জ্বল হও। এ পোস্টের কমেন্ট বক্সে একটি মন্তব্য করেন ঐশ্বরিয়া।

তাতে এ অভিনেত্রী লেখেন, ‘আমি আনন্দিত যে, আরাধ্য দেখতে তার বাবা কিংবা মায়ের মতো নয়। কিন্তু বাবা-মায়ের মিশ্রণ। তার নিজস্ব ইমেজ রয়েছে।’ দিন শেষে অভিষেককে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানানো বিষয়টি ইতিবাচকভাবে দেখছেন না নেটিজেনরা। একজন মন্তব্য করেছেন, ‘তিনি তার স্বামীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। কিন্তু পোস্টে প্রিয় স্বামী বা অন্য কিছু লেখেননি।’ আরেকজন লেখেন, ‘মনে হয় তাদের বিচ্ছেদের গুঞ্জন সত্যি।’ এমন অসংখ্য মন্তব্য ভেসে বেড়াচ্ছে কেমেন্ট বক্সে।

ঐশ্বরিয়া-অভিষেক অনেক পুরোনো বন্ধু। ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে একসঙ্গে সিনেমায় কাজ করেছেন তারা। ‘ঢাই আকসার প্রেম কা’ সিনেমায় প্রথম একসঙ্গে কাজ করেন তারা। এখান থেকেই তাদের বন্ধুত্বের সূচনা। যা পরবর্তীতে প্রেমে রূপ নেয়। ২০০৭ সালের ২০ এপ্রিল বিয়ে করে সংসার জীবন শুরু করেন অভিষেক-ঐশ্বরিয়া। ২০১১ সালের ১৬ নভেম্বর এই দম্পতির ঘর আলো করে জন্ম নেয় কন্যা আরাধ্য।


আরও খবর



ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অশ্বিনের ভিন্নরকম ‘সেঞ্চুরি’

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী 20২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৪২জন দেখেছেন

Image

ভারত-ইংল্যান্ডের পাঁচ ম্যাচ টেস্ট সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে উইকেট নিয়ে ভারতীয় দ্বিতীয় ও বিশ্বের নবম বোলার হিসেবে লাল বলে ৫০০ উইকেট শিকার করেন স্পিনার রবীচন্দ্রন অশ্বিন। তবে ঐ টেস্ট চলাকালীন পারিবারিক কারণে দল ত্যাগ করলে আরেকটি মাইল ফলক ছোঁয়া হয়নি তার। তবে এর জন্য অবশ্য আর বেশি অপেক্ষা করতে হয়নি তাকে। পরবর্তী ম্যাচেই দলে যুক্ত হয়ে নিজের মুকুটে নতুন এক সোনালি পালক যুক্ত করে নিয়েছেন অশ্বিন।

শুক্রবার রাঁচিতে ইংলিশদের প্রথম ইনিংসের পঞ্চম ব্যাটার জনি বেয়ারস্ট্রোকে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলে ভারতীয় বোলার হিসেবে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্টে ‘১০০তম’ উইকেট শিকারের রেকর্ড গড়েন অশ্বিন। দলটির বিপক্ষে মাত্র ৪৩ ইনিংস খেলেই এই মাইলফলক অর্জন করেছেন তিনি। ভারতের টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে তার আগে এই কীর্তি গড়তে পারেননি আর কেউ। এর আগে ভাগবত সুব্রামানিয়া চন্দ্রশেখর ৩৮ ইনিংস খেলে নিয়েছিলেন সর্বোচ্চ ৯৫ উইকেট, অনীল কুম্বলে ৩৬ ইনিংসে নিয়েছিলেন ৯২ উইকেট। এছাড়া বিশান সিং বেদি ৩৬ ইনিংসে শিকার করেছিলেন ৮৫ উইকেট। আর কপিল দেব ৪৮ ইনিংসে নিয়েছিলেন ৮৫ উইকেট।

এদিকে ভারত ছাড়া বিশ্বক্রিকেটেও বর্তমানে খেলা চালিয়ে যাওয়া বোলারদের মধ্যে এই কীর্তি আছে কেবল অস্ট্রেলিয়ার ডানহাতি স্পিনার নাথান লায়নের। তিনি ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৫৪ ইনিংসে শিকার করেছেন ১১০ উইকেট। আর শেন ওয়ার্ন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৭২ ইনিংসে নিয়েছেন সর্বোচ্চ ১৯৫ উইকেট।

চতুর্থ টেস্টের প্রথম দিনে ভারতীয় বোলারদের দাপটে প্রায় অল্পতেই গুটিয়ে যেতে শুরু করেছিল সফরকারী ইংল্যান্ডের ব্যাটাররা। সেখানে ব্যাট হাতে প্রায় একাই প্রতিরোধ দাঁড় করিয়ে বলা যায় একাই লড়ে যাচ্ছেন জো রুট। তাতে পেয়েছেন সাদাপোশাকের ৩১তম সেঞ্চুরির দেখা। পাশাপাশি তার দলও লড়াকু সংগ্রহের দিকে এগিয়ে চলছে। প্রথম দিন শেষে ইংলিশদের ৭ উইকেট হারিয়ে সংগ্রহ ৩০২ রান।


আরও খবর

এক ম্যাচ নিষিদ্ধ রোনালদো

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

রিয়ালকে নতুন কী ‘শর্ত’ দিলেন এমবাপ্পে?

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪




আসলেই কি বিচ্ছেদ হচ্ছে, স্পষ্ট করলেন নেহা কক্কর

প্রকাশিত:বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ মার্চ ২০২৪ | ২০জন দেখেছেন

Image

বলিউডের জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী নেহা কক্কর দীর্ঘদিন প্রেমের পর প্রেমিক রোহনপ্রীতের সঙ্গে ২০২০ সালে বিবাহবন্ধনে আবন্ধ হন। বিয়ের পর সোশ্যাল মিডিয়ায় বয়সে আট বছরের ছোট স্বামীর প্রতি ভালোবাসা উজাড় করা নানা বার্তা ও ছবি পোস্ট করেন তিনি। যেকোনো কিছু উদযাপন, ছুটি কাটানোতে একসঙ্গে দেখা যায় তাদের। তবে মাঝে গুঞ্জন উঠে- বিচ্ছেদের পথে হাঁটছেন রোহন-নেহা।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবর, গত বছর বলি গায়িকার জন্মদিনের সময় থেকেই বিচ্ছেদের চর্চা শুরু হয়। গুঞ্জন উঠে, স্বামীর সঙ্গে বনিবনা হচ্ছে না। এ কারণেই বিচ্ছেদ হচ্ছে তাদের। এরই মধ্যে খবর রটে, অন্তঃসত্ত্বা নেহা। এসব নানা ব্যাপারে যখন সোশ্যাল মিডিয়া ভরপুর, তখন বিষয়টি স্পষ্ট করলেন গায়িকা নেহা। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানান, তাদের নিয়ে মানুষ সমালোচনা করতে ভালোবাসে, যেটা খুবই দুঃখজনক।

এছাড়া রোহনের সঙ্গে বিচ্ছেদের গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়ে নেহা বলেন, আসলে কিছু মানুষ তাদের নিজেদের মতো করে গল্প তৈরি করেন। সেসব মানুষকে খুব একটা পাত্তা দেই না আমি। আমাদের মধ্যকার গল্পটা শুধু আমাদেরই জানা। তিনি আরও জানান, একসময় স্বামী ও পরিবার নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েছিলেন তিনি। তবে এখন কাজে ফিরছেন। পুরোদমে সেদিকে মনোযোগী হতে চান ইন্ডিয়ান আইডল খ্যাত এ তারকা।

সবশেষ নেহা বলেন, আমার স্বামীকে আমি এখন আমার সময়ের বড় একটা অংশ দেয়ার চেষ্টা করি। আমাদের বিয়ের যেহেতু তিন বছর পার হয়েছে, তাই এখন কাজেই মনোযোগ দিতে চাইছি।


আরও খবর



তিনটির বেশি উৎসাহ বোনাস পাবেন না সরকারি ব্যাংকাররা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ | ৫৬জন দেখেছেন

Image

রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বাণিজ্যিক ও বিশেষায়িত ব্যাংক কর্মীদের ‘উৎসাহ বোনাস’ দেওয়ার ক্ষেত্রে বিভিন্ন শর্ত জুড়ে দিয়েছে সরকার। ফলে এখন সরকারি ব্যাংকগুলোর পরিচালনা পর্ষদ চাইলেও তিনটির বেশি বোনাস দিতে পারবে না। সম্প্রতি অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও বাজার বিভা ‘উৎসাহ বোনাস’ নামে গাইডলাইন প্রকাশ করেছে। 

এতে বলা হয়েছে, ‘উৎসাহ বোনাস’ কোনো অধিকার নয়, এটি আর্থিক সুবিধা যা পর্ষদের বিশেষ বিবেচনায় দেওয়া হয়। এ বোনাস দেওয়ার ফলে সরাসরি নগদ অর্থের ওপর চাপ পড়ে এবং হ্রাস পায়। রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বাণিজ্যিক ব্যাংকের আর্থিক সুবিধা দিতে ২০১৪ সালে খসড়া গাইডলাইন করা হয়। ওয়ার্কিং ফান্ডের ওপর নিট মুনাফার হারের ভিত্তিতে বোনাস দেওয়া সুপারিশ ছিল কিন্তু বর্তমান প্রেক্ষাপটে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ব্যাংকের বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে প্রভিশন সংরক্ষণের সুবিধা নিয়ে পরবর্তী প্রদর্শন করছে। ফলে প্রকৃতপক্ষে ব্যাংকগুলোর প্রভিশন ঘাটতি সমন্বয় করলে নিট মুনাফার পরিবর্তে লোকসান হতো বলে জানিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়। 

মন্ত্রণালয় জানায়, রাষ্ট্রীয় ব্যাংকগুলো সরকারের বিভিন্ন খাতের স্বল্প সুদের ঋণ দেয়, বিনা মূল্যে সরকারের বিভিন্ন সেবা প্রদান করে এবং সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর সংক্রান্ত বিভিন্ন সেবা দেয়। ফলে তারা কাঙ্ক্ষিত মুনাফা অর্জন করতে পারে না। এমন পরিস্থিতিতে ব্যাংকগুলোর সার্বিক প্রবৃদ্ধি ও উন্নয়ন কর্মকর্তাদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণের লক্ষ্যে উৎসাহ বোনাস বিষয়ে গাইডলাইন দেওয়া হয়েছে।

নতুন নির্দেশনায় ব্যাংকগুলোর বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (এপিএ) বাস্তবায়ন হারের ওপর ২০ শতাংশ এবং পরিচালন মুনাফা হারের ওপর ৮০ শতাংশ স্কোর নির্ধারণ করা হয়েছে। এই স্কোরের ভিত্তিতে পরিচালন মুনাফা থেকে উৎসাহ বোনাস বণ্টন হবে। ফলে এখন থেকে কোনো ব্যাংক ৫০-এর নিচে স্কোর পেলে বোনাস দিতে পারবে না। আর ৫০ থেকে ৬০ স্কোর পেলে এক মাসের মূল বেতনের সমপরিমাণ উৎসাহ বোনাস পাবে, ৬১ থেকে ৭০ হলে দেড় মাস, ৭১ থেকে ৮০ হলে দুই মাস, ৮১ থেকে ৯০ হলে আড়াই মাস এবং ৯০-এর বেশি স্কোর হলে তিন মাসের মূল বেতনের সমপরিমাণ উৎসব বোনাস পাবেন সরকারি ব্যাংকাররা।

রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের কর্মকর্তারা জানান, এতদিন নিট মুনাফা বিবেচনা করে নিজ নিজ ব্যাংকের পর্ষদ সিদ্ধান্ত নিত উৎসাহ বোনাস কত হবে। এতে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর কর্মীরা বছরে তিন থেকে চারটি করে বোনাস পেত। নতুন নির্দেশনার ফলে তিনটির বেশি বোনাস দিতে পারবে না সরকারি ব্যাংকগুলো। এ গাইডলাইন বাস্তবায়ন ও স্কোর নির্ধারণের জন্য বেশ কয়েকটি শর্ত জুড়ে দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে যদি কেউ এ গাইডলাইনের বাইরে উৎসাহ বোনাস দিতে চায় তাহলে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সম্মতি নিতে হবে। ব্যাংকের মোট পরিচালন আয় থেকে মোট পরিচালন ব্যয় বাদ দিয়ে পরিচালন মুনাফা হিসাব করতে বলা হয়েছে গাইডলাইনে।


আরও খবর

১০ দেশের রাষ্ট্রদূতকে দেশে ফেরার নির্দেশ

বৃহস্পতিবার ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

সংরক্ষিত নারী আসনের এমপিদের শপথ বিকালে

বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪