Logo
আজঃ সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২
শিরোনাম

পারিবারিক পুষ্টি বাগান বদলে দিয়েছে পরিবেশ, নোংরা দুর্গন্ধময় জায়গা এখন সবুজ ও সুরভিত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ১২২জন দেখেছেন
Image

সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধিঃ ‘বাড়ির সামনের এই জায়গাটুকু পরিত্যক্ত অবস্থায় ছিলো, ময়লা ফেলতাম। গরু ছাগল বেঁধে রাখতাম, প্রসাব পায়খানা করতো। দুর্গন্ধ হতো। এখন এই জায়গাটুকুতেই অনেক ধরণের শাক সবজি হচ্ছে’। 

কৃষি সুপারভাইজার ভাইয়ের বুদ্ধি পরামর্শ নিয়ে নিজের আঙ্গিনায় শাক সবজি উৎপাদন করতে পারছি। আমার বাগান থেকেই টাটকা সবজি সংগ্রহ করে খেতে পারছি।’ এই বাগান হয়ে অনেক ভালো হয়েছে।উপরোক্ত কথাগুলো বলেছেন নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার কামারপুকুর ইউনিয়নের ব্রক্ষ্মোত্তর কুতুপাড়া এলাকার আমজাদ হোসেনের স্ত্রী নার্গিস আক্তার। রবিবার (৭ আগস্ট) ব্রহ্মোত্তর গ্রামে গেলে তিনি সংবাদকর্মীদের এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, দেড় শতক জায়গা এখন আমার কাছে অনেক সম্পদ মনে হচ্ছে। লাউ, বেগুন, শিম, বরবটি, পেঁপে, ঝিংগা, চিচিংগা, করলা, কায়তা, পাটশাক, লালশাক, সবুজশাক প্রভৃতি আবাদ করছি।বাড়ির পাশের পরিত্যক্ত জায়গায় পারিবারিক পুষ্টি বাগান গড়ে তুলেছেন সরকারপাড়ার আফতাব উদ্দিনের স্ত্রী জোহরা বেগম।

তিনি বলেন, ‘এখন আর আমাদের বাজার থেকে শাক-সবিজ কিনতে হয় না। নিজেদের বাগানে শাক-সবজি জৈব সার দিয়ে চাষ করছি। এতে কোনো ধরনের রাসায়নিক সার কিংবা কীটনাশক ব্যবহার করছি না। মুরগির বিষ্ঠা, মাছের পানি, উচ্ছিষ্ট সার হিসেবে ব্যবহার করছি। ‘শুধু আমরা খাই তা কিন্তু নয়, অনেকে কিনে নিয়ে যান সবজি। পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ খাবার খাচ্ছি আমরা, এটাই বড় বিষয়।’

কোরানীপাড়া এলাকার দিনমজুর এনামুল হক। তিনিও বাড়ির পাশে দেড় শতক জায়গাজুড়ে গড়ে তুলেছেন সবজির বাগান। বলেন, ‘আমি চিন্তাও করিনি এতটুকু জায়গায় এত ধরনের ফসল ফলানো সম্ভব। কৃষি বিভাগের পরামর্শ ও সহযোগিতায় এটি সম্ভব হয়েছে। বিশেষ করে স্থানীয় উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোমিনুর মোস্তফা জামানের উদ্যোগেই এটি সম্ভব হয়েছে।’

‘তিনি আমাদের বীজ দিয়েছেন, কোথায় কী বীজ দিতে হবে, কিভাবে জাংলা (মাচান) দিতে হবে, সব শিখিয়ে দিয়েছেন। যার ফলে এ ধরনের বাগান করা সম্ভব হয়েছে।’ ৩৫টি বাড়ি নিয়ে গড়ে ওঠা ব্রোক্ষ্মোত্তরপাড়াটি এখন সবজি গ্রাম হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে। যে কাউকে বললেই দেখিয়ে দেবে সবজি গ্রামের লোকেশন। এই এলাকার মানুষ এখন আর সরকারপাড়া, কোরানীপাড়া কিংবা কুতুপাড়ার মানুষ হিসেবে নন, পুষ্টি গ্রামের মানুষ হিসেবে পরিচিত।

ওই এলাকার বাসিন্দা পোষাক কারখানার শ্রমিক খাদিজাতুল জান্নাত বলেন, আমিও পারিবারিক পুষ্টি বাগান করার জন্য যোগাযোগ করছি কৃষি কর্মকর্তার সাথে। সামনের দিনে আমিও করবো। এর অনেক উপকারীতা দেখছি চোখের সামনে। 

তিনি আরও বলেন, এলাকার রাস্তা দিয়ে হাঁটলে এখন আর প্রসাব, পায়খানা কিংবা নোংরা আবর্জনা চোখে পড়ে না। চোখে পড়বে লাউ, শিম, বরবটি, পেঁপে, বেগুন প্রভৃতির সবুজ দৃশ্য। সেইসাথে অনেক ধরণের ফুল ফলের সুবাস। ফলে একসময়ের দুর্গন্ধময় জায়গায় এখন সুরভিত পরিবেশ। 

ব্রহ্মোত্তর ব্লকের উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোমিনুর মোস্তফা জামান বলেন, ‘চলতি বছরের শুরু থেকে পারিবারিক পুষ্টি বাগান স্থাপন শুরু হয়। কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করে প্রশিক্ষণ, বীজ ও সার দিয়ে পরিকল্পনামাফিক এ বাগান তৈরি করা হয়। এর সুফল পাচ্ছেন বাগান মালিক ও এলাকার বাসিন্দারা।’

তিনি আরও বলেন, ‘বাগানের মালিকরা পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ শাক-সবজি গ্রহণ করতে পারছেন, উৎপাদনে মনোনিবেশ তৈরি হচ্ছে এবং সংসারের কাজের ফাঁকে তারা কৃষিতে সময় দিতে পারছেন। এটি কৃষি বিভাগের একটি সফলতা।’

উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান আশা বলেন, বাংলাদেশ সরকারের কৃষি বিভাগের উদ্যোগে পারিবারিক পুষ্টি বাগান কার্যক্রমের মাধ্যমে বাড়ীর আশেপাশের পরিত্যক্ত, ময়লা আবর্জনাযুক্ত অপ্রয়োজনীয় জায়গা কৃষির আওতায় এনে কাজে লাগানো হয়েছে। এতে ছোট ছোট পরিসরেই নিজস্ব বাগানে নানা ধরনের নিত্য প্রয়োজনীয় সবজি, ফলের চাষ করে দরিদ্র ব্যক্তিরা বেশ উপকৃত হচ্ছেন। 

তিনি বলেন, অনেকে পরিবারের চাহিদা মিটিয়ে উৎপাদিত শাক-সবজি ও ফল বিক্রি করছেন। এতে যেমন নিজের দৈনন্দিন ব্যয় কমেছে। তেমনি বাড়তি আয়ের ব্যবস্থাও হয়েছে। ফলে কারও কারও অভাব ঘুচানোর উৎস্য হয়ে দাঁড়িয়েছে এই বাগান। আবার কেউ কেউ বাগানের মাঝেই ছোট গর্ত করে তাতে মাছ চাষ করায় আমিষের সাথে প্রোটিনেরও  ঘাটতি পূরণ হচ্ছে। অর্থাভাবে যারা তরকারী ছাড়াই কোনরকমে লবন মরিচ দিয়ে ভাত খেয়ে দিনাতিপাত করতো তারাও এখন তিন বেলায়ই কোন না কোন শাক-সবজি দিয়ে খাবার খেতে পারছে।

তিনি আরও বলেন, ইউনিয়নের প্রায় প্রতিটি ওয়ার্ডেই বেশ কিছু পাড়া মহল্লায় এই পারিবারিক পুষ্টি বাগান করা হয়েছে। এতে প্রায়  শতাধিক পরিবার উপকৃত হয়েছেন। তাদের দেখে আরও অনেকেই নিজ আগ্রহে বাগান করছেন। সবাইকে আমরা বীজ, সার, কীটনাশক দেয়াসহ প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিয়ে সার্বিক সহযোগীতা করছি। অনেককে চাষ বিষয়ে হাতে কলমে প্রশিক্ষণ দিয়ে সফল কৃষক হিসেবে গড়ে তুলেছি। আশাকরি এই উদ্যোগ কৃষি বিপ্লব হিসেবে পরিগণিত হবে এবং সাফল্যের স্বাক্ষর রাখবে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শাহিনা বেগম জানান, ‘উপজেলায় ৬০০টি পারিবারিক পুষ্টি বাগান করার পরিকল্পনা রয়েছে। এরই মধ্যে ২৮৬টি বাগান তৈরি হয়েছে। কামার পুকুর ইউনিয়নের ব্রহ্মোত্তরপাড়ায় ৩৫টি পারিবারিক পুষ্টি বাগান স্থাপন করা হয়েছে। এলাকাটি এখন পুষ্টি গ্রাম হিসেবেই পরিচিত।

ওই এলাকার বাসিন্দারা এখন নিরাপদ সবজি গ্রহণ করছেন। সরকারিভাবে বীজ, সার ও চারা দেয়া হচ্ছে। শাক-সবজির পাশাপাশি কমলা, পেয়ারা, মাল্টা ও লেবুও উৎপাদন করছেন বাগানিরা।  



আরও খবর



বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন

কোটালিপাড়া শাখা কমিটি অনুমোদন কাজী অমিত মাহমুদ সভাপতি মাহবুব সুলতান সাধারণ সম্পাদক

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৫০৩জন দেখেছেন
Image

 কোটালিপাড়া, গোপালগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

গোপালগঞ্জের  কোটালীপাড়ায়  মানবাধিকার কমিশন কোটালিপাড়া শাখার কমিটি গঠন করা হয়েছে।

গত বুধবার বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের পরিচালক এ্যাডভোকেট ফারাহ দিবা জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মুরাদুল ইসলামের মাধ্যমে সাক্ষরিত কমিটির অনুমোদন পত্র কোটালিপাড়া শাখা কমিটির কাছে হস্তান্তর করেছেন।

কোটালিপাড়া উপজেলা শাখায়২৬ সদস্যের কার্যনির্বাহী কমিটির মধ্যে মানবতাবাদী কাজী অমিত মাহমুদ কে সভাপতি ও সাংবাদিক এফ এম মাহাবুব সুলতান কে সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে।কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন  নির্বাহী সভাপতি সাংবাদিক সুবল চক্রবর্তী সহ সভাপতি মনিন্দ্র মাস্টার,সহসভাপতি প্রমথ সরকার  যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কমল দাস, সাংগঠনিক সম্পাদক জেমস বাড়ৈ প্রচার সম্পাদক রনি আহমেদ ক্রীড়া সম্পাদক প্রভাষক  চয়ন ,বিশ্বাস, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক রেবুয়াল হোসেন, মহিলা বিযয়ক সম্পাদীকা রওশন জাহান,নির্বাহী সদস্য সাবীর বিন সুলতান প্রমুখ


আরও খবর



দল নিয়ে ভাবি, নিজেকে নিয়ে নয়: বেনজেমা

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৯০জন দেখেছেন
Image

রিয়াল মাদ্রিদের ইতিহাসে সর্বোচ্চ গোলদাতাদের তালিকায় ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর পরেই অবস্থান করিম বেনজেমার। তবে দুজনের মাঝে পার্থক্যটা বিশাল। চ্যাম্পিয়ন্স লিগেও তাদের গোলের ব্যবধান অনেক। সাম্প্রতিক সময়ে দুর্দান্ত ছন্দে থাকলেও ফরাসি স্ট্রাইকার তাই খুব ভালো করেই জানেন, পর্তুগিজ তারকার রেকর্ড স্পর্শ করা তার পক্ষে অসম্ভব। তাই গোলের সংখ্যায় মনোযোগ না দিয়ে তিনি কেবল দলের জয়ে রেখে যেতে চান অবদান।

আগামী ডিসেম্বরে ৩৫ বছর পূর্ণ হবে বেনজেমার। তবে তার পারফরম্যান্সে নেই তার ছাপ। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তিনি যেন হয়ে উঠছেন অপ্রতিরোধ্য। ২০২১-২২ মৌসুমে রিয়ালের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ, লা লিগা ও স্প্যানিশ সুপার কাপ জয়ে সবচেয়ে বড় অবদান ছিল বেনজেমার। লা লিগা ও চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ছিলেন মৌসুমের সর্বোচ্চ গোলদাতা। লা লিগায় ২৭ গোল করে জিতে নেন পিচিচি ট্রফি। আর ইউরোপ সেরার মঞ্চে করেন ১৫টি। মাদ্রিদের দলটির হয়ে গেল মৌসুমে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ৪৬ ম্যাচে তার গোল ৪৪টি।

ক্লাব ও জাতীয় দলে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের স্বীকৃতিস্বরূপ গত বৃহস্পতিবার উয়েফার বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার জেতেন বেনজেমা। পরে ইউরোপিয়ান স্পোর্টস মিডিয়াকে (ইএসএম) বলেন, ব্যক্তিগত অর্জনের চেয়ে দল জেতানোর ভাবনা নিয়েই মাঠে নামেন তিনি। 

বেনজেমা বলেন, ৩৪ বছর বয়সে এসে এখন আমি আরও ভালো অনুভব করছি, আগের চেয়ে ভালো খেলছি। এটা সত্যি যে, ব্যক্তিগত দিক থেকে এই মৌসুম আমার ক্যারিয়ারের সেরা। তবে একটা জায়গায় কোনো পরিবর্তন হয়নি। ম্যাচ জিততে আমার কী করণীয়, সেটা ভেবেই আমি মাঠে যাই। দল নিয়ে ভাবি, নিজেকে নিয়ে নয়।

রিয়ালের সবশেষ চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ের মূল নায়ক ছিলেন বেনজেমা। বারবার দলকে হারের দুয়ার থেকে টেনে আনেন তিনি। শেষ ষোলোয় পিএসজি ও কোয়ার্টার-ফাইনালে চেলসির বিপক্ষে করেন হ্যাটট্রিক, ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষেও সেমি-ফাইনালে দুই লেগ মিলিয়ে করেন তিন গোল। সব মিলিয়ে আসরে তার ১৫ গোলের ১০টিই ছিল নকআউট পর্বে। এনিয়ে পঞ্চম চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপা জিতলেন বেনজেমা। তবে এবারের জয় তার কাছে সবচেয়ে কঠিন ও উপভোগ্য।

তিনি বলেন, যদিও প্রতিটি শিরোপার নিজস্ব ইতিহাস আছে এবং সবগুলোই আলাদা। তবে বলতে পারি যে আমার জেতা পাঁচটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগের মধ্যে এটাই ছিল সবচেয়ে কঠিন। কোণঠাসা অবস্থা থেকে বারবার আমরা ঘুরে দাঁড়িয়েছি এবং কখনও হাল ছেড়ে দেইনি, এসব কারণে আমার কাছে এবারেরটা সবচেয়ে উপভোগ্যও ছিল।

রিয়ালে রোনালদো থাকাকালীন সেভাবে কখনোই পাদপ্রদীপের আলোয় আসতে পারেননি বেনজেমা। ২০১৮ সালে পর্তুগিজ তারকা চলে যাওয়ার পর নিজেকে নতুনভাবে মেলে ধরেন তিনি। দলের মূল গোলদাতার দায়িত্ব পালন করছেন, সঙ্গে সতীর্থদের দিয়েও করাচ্ছেন গোল।

তবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে কিংবা রিয়ালে রোনালদোর গোলের রেকর্ড ছোঁয়া এখনও বহু দূরের পথ বেনজেমার জন্য।

ইউরোপ সেরার প্রতিযোগিতায় সাবেক রিয়াল ফরোয়ার্ডের গোল ১৪০টি। ১২৫ গোল নিয়ে দুই নম্বরে আছেন লিওনেল মেসি। রবের্ত লেভানদোভস্কির সঙ্গে যৌথভাবে তালিকায় তিনে বেনজেমা। দুইজনেরই গোল ৮৬টি করে। আর রিয়ালের ইতহাসে রেকর্ড ৪৫০ গোল রোনালদোর। সেখানে ৩২৫ গোল নিয়ে দুই নম্বরে আছেন বেনজেমা।



আরও খবর

এশিয়া কাপ শেষে দেশে ফিরলো টাইগাররা

শনিবার ০৩ সেপ্টেম্বর ২০২২




অসুস্থ রানি এলিজাবেথ, নেওয়া হয়েছে চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৭৩জন দেখেছেন
Image

ব্রিটিশ রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথে শারীরিকভাবে কিছুটা অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। ফলে স্কটল্যান্ডের বালমোরালে চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে রাখা হয়েছে তাকে। বৃহস্পতিবার বাকিংহ্যাম প্যালেস জানিয়েছে এ তথ্য।  

গ্রীষ্মকালীন সময় কাটাতে বর্তমানে স্কটল্যান্ডের প্রাসাদে রয়েছেন ৯৬ বছর বয়সী রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ। তার শারীরিক অবস্থা নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেন মেডিকেল কর্মকর্তারা। এরপর তাকে চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে রাখার জন্য বলা হয়। 

এ ব্যাপারে একটি বিবৃতিতে বাকিংহ্যাম প্যালেস বলেছে, আজ সকালে আরও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে, রানির চিকিৎসকরা তার শারীরিক অবস্থা নিয়ে শঙ্কার কথা প্রকাশ করেন এবং তাকে চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে থাকার জন্য প্রস্তাব দেন। 

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, বালমোরালে বর্তমানে স্থিতিশীল আছেন রানি। তার পরিবারের কাছের সদস্যদের খবর দেওয়া হয়েছে। এদিকে রানির অসুস্থতার খবর শোনার পর নতুন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাস বলেন, পুরো দেশ এমন খবরে চিন্তিত থাকবে। 

তিনি আরও বলেন, এ মুহূর্তে রানি ও তার পরিবারের জন্য আমার, ব্রিটেনের জনগণের শুভকামনা থাকবে।বুধবার ভার্চ্যুয়ালি হওয়া প্রিভি কাউন্সিলে যোগ দেননি রানি এলিজাবেথ। কারণ চিকিৎসকরা তাকে বিশ্রামে থাকার জন্য বলেন। 

সূত্র: বিবিসি


আরও খবর

রাশিয়ার গ্যাসের বিকল্প নেই: জার্মানি

শনিবার ০৩ সেপ্টেম্বর ২০২২




বন্যায় ধুঁকছে পাকিস্তান, লাখ লাখ মানুষের আজাহারি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৭৯জন দেখেছেন
Image

পাকিস্তানে ভয়াবহ বন্যার তাণ্ডব অব্যাহত রয়েছে। দেশটির বিভিন্ন প্রদেশে বন্যার পরিস্থিতির তেমন উন্নতির কোনো খবর পাওয়া যায়নি। উল্টো এই পরিস্থিতি আরও খারাপের দিকে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করা হয়েছে। 

পাকিস্তানের একাধিক সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, বন্যায় এখন পর্যন্ত মৃত্যুর সংখ্যা এক হাজার ১৩৬ জনে দাঁড়িয়েছে। আহত হয়েছে শতাধিক। এতে তিন কোটিরও বেশি মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।  

জুন থেকে শুরু হওয়া বন্যা লাখো মানুষকে ঘরছাড়া করেছে। এই পরিস্থিতিতে জনগণকে সহায়তায় পাকিস্তান সরকার তার ক্ষমতার সর্বোচ্চটাই করছে। বন্যায় বিপর্যস্ত দেশটি আন্তর্জাতিক সহায়তা পেতে বিভিন্ন সংস্থা ও রাষ্ট্রের কাছে আবেদন জানিয়েছে। ইতোমধ্যে পাকিস্তানের সাহায্যের আবেদনের প্রেক্ষিতে সাড়া দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও অন্য কয়েকটি দেশ। 

পাকিস্তানের ন্যাশনাল ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট অথরিটির (এনডিএমএ) প্রকাশিত তথ্য অনুসারে, গত ২৪ ঘণ্টায় ২৭ শিশু ও ১৭ জন নারীসহ সর্বমোট ৭৫ জনের প্রাণহানি হয়েছে। এছাড়াও আহত হয়েছে ৫৯ জন। এনডিএমএ জানিয়েছে, বন্যায় ১০ লাখেরও বেশি বাড়ি ধ্বংস হয়েছে।

এনডিএমএর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের সংখ্যা বেড়ে তিন কোটিতে দাঁড়িয়েছে। সিন্ধু প্রদেশের ২৩টি জেলায় এক কোটি ৪০ লাখ মানুষ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। 

এছাড়াও বেলুচিস্তানের ৩১টি জেলায় ৯০ লাখ, পাঞ্জাবের ৩টি জেলায় ৪৮ লাখ ও খাইবার পাখতুনখোয়ার ৯টি জেলায় ৪৪ লাখের মতো মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।



আরও খবর



জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে রাজাপুরে আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ৮০জন দেখেছেন
Image
ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ ঝালকাঠির রাজাপুরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

শনিবার (২৭আগষ্ট) সকাল সাড়ে ১০টায় রাজাপুর উপজেলার গালুয়া ইউনিয়নের নিজ গালুয়া গ্রামে চুয়াডাঙ্গার নব নিযুক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল্লাহ আল-মামুনের সহযোগীতায় কালো ব্যাজ ধারণ করে আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। মাস্টার জহির উদ্দিন মিয়া স্মৃতি পাঠাগার ও এম এম যুব কল্যাণ সংঘ তাদের নিজস্ব কার্যালয়ে এ আয়োজন করেন।

আলোচনা সভায় মাস্টার জহির উদ্দিন মিয়া স্মৃতি পাঠাগার এর প্রতিষ্ঠাতা অবসরপ্রাপ্ত ওসি মনোয়ার হোসেন'র সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শাহ্ জাহান মোল্লা, অবসর প্রাপ্ত যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা আল আমিন বাকলাই, এম এম যুব কল্যাণ সংঘের সভাপতি মো. আব্দুল্লাহ আল-আমিন, সহ সভাপতি এস এম মাসুম বিল্লাহ প্রমুখ।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, রাজাপুর থানার ওসি তদন্ত মো. গোলাম মোস্তফা, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক বাপ্পি মিয়া সহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

সংগঠনের পক্ষ থেকে উপস্থিতিদের মাঝে টি-শার্ট ও দোয়া শেষে তাবারক বিতরণ করা হয়েছে।


আরও খবর

বিষখালীর হঠাৎ ভাঙনে ছয় দোকান বিলীন

মঙ্গলবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২